Mon. Apr 12th, 2021

শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় জাতির পিতাকে স্বরন করলো শহীদ নূর হোসেন ব্লক

ডেইলি বিডি নিউজঃ হাজার বছরে শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহানায়ক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাৎবার্ষিকী ও জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে শহীদ নূর হোসেন ব্লক যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগ সিলেট মহানগরীর উদ্যোগে বিশাল শোকর‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় সিলেট মহানগরীর দর্শনদেউড়ী থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে আম্বরখানা-দরগাগেট, চৌহাট্টা, জিন্দাবাজার হয়ে মিছিলটি ঐতিহাসিক কোর্টে পয়েন্টে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি বলেন- পাকিস্তানের পরাজিত শক্তিরা ১৫ই আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করে দেশকে পাকিস্তারি ভাবধারায় পরিচালিত করার ষড়যন্ত্র করেছিলো। পরবর্তীতে পাকিস্তারি দোসর জামায়াতকে পুনর্বাসন করে এবং জাতীয় পতাকা তুলে দিয়ে সেই পথেই বাংলাদেশকে নিয়ে যাচ্ছিলো বিএনপি। কিন্তু বাঙালির আশা-আকাঙ্খার প্রতিক জননেত্রী শেখ হাসিনা ভাগ্যক্রমে বেঁঁচে যাওয়ায় এবং পরবর্তীতে দেশে আসায় পাকিস্তানি প্রেতাত্মাদের সেই স্বপ্ন মলিন হয়ে যায়। শেষ মরণকামড় হিসেবে তারা আরেকটি ১৫ আগস্ট জন্ম দিতে এবং আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রেনেড হামলা করে শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিলো। কিন্তু আবারো আল্লাহর দয়ায় তিনি বেঁচে যান। আজ সেই শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে একটি উন্নত সমৃদ্ধশালী ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি ১৫ আগস্টের হামলাকারী বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসি কার্যকরের পাশাপাশি ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলা দ্রুত সম্পন্ন করে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানান। এসময় তিনি নিহত সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রুহের মাগফিরাত কামনা করেন।

সিলেটের ইতিহাসে শহীদ নূর হোসেন ব্লকের সর্ব বৃহৎ শোকর‍্যালী (ছবিঃ নাঈম চৌধুরীর সৌজন্যে)

শোকর‌্যালীতে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, মতিউর রহমান, সাইফুর রহমান খোকন, ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ, সোহেল আহমদ সাহেল, আব্দুল লতিফ রিপন, ফারুক আহমদ, কয়েছ আহমদ, সালেহ আহমদ লিমন, এম ইউসুফ মিয়া, মুহিবুর রহমান মুন্না, রাহাত হোসেন রাজু, শোয়েব আহমদ চৌধুরী, শামসুল ইসলাম মিলন, সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাহাত তরফদার, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের গণযোগাযোগ বিষয়ক উপ সম্পাদক মইনুল ইসলাম ফয়সাল, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য ইমদাদুল হক জাহেদ, সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল বাছিত রুম্মান, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জিয়াউল হক জিয়া, মোঃ আলী কামাল সুমন, আশরাফ সিদ্দিকী, ফয়েজ উদ্দীন পলাশ, সাইফুদ্দিন আহমদ সাবের, আলী বাহার প্রমুখ।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন-  জহিরুল ইসলাম শিরু, শাহ্ আলম, ছাত্রলীগ নেতা এহিয়া আহমদ সুমন, নাঈম চৌধুরী, শাব্বির আহমদ, নজির হোসাইন লাহিন, খলিলুল ইসলাম আশা, ফারহান আহমদ, কিশোয়ার জাহান সৌরভ, রাবিব মুহতাদী চৌধুরী, আরিফ ইসলাম, শায়েক আহমদ, ওয়ালী সোয়ান, আকিব ইসলাম, সাবির হামজা, ওয়াকিল কোরেশী, নূরুল হুদা, মতিউর রহমান, বাহার উদ্দিন, তুহিনুর জামান ইয়াকুব প্রমুখ।