|
এই সংবাদটি পড়েছেন 770 জন

রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে জাতিসংঘের সহায়তা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী

ডেইলি বিডি নিউজঃ বিদ্যমান রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানে জাতিসংঘের সহায়তা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত সোমবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরে সংস্থাটির মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেসের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে তিনি এ সহায়তা চান। অর্থমন্ত্রী জাতিসংঘের মহাসচিবকে বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রস্তাব অনুযায়ী রোহিঙ্গাদের জন্য মিয়ানমারে একটি সেফ জোন করে এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান করা জরুরি।

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এ সময় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত অ্যান্থনিও গুতেরেসকে শিগগিরই বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে জাতিসংঘের মহাসচিব রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। এছাড়া মানবিক সহায়তার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তার সরকারকে ও সর্বপরি বাংলাদেশের মানুষদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

অ্যান্থনিও গুতেরেস জানান, তিনি রোহিঙ্গা ইস্যুটি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। এসময় তিনি অর্থমন্ত্রীকে বলেন, জনবহুল দেশ হওয়া সত্ত্বেও রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তায় এগিয়ে আসায় তিনি অত্যন্ত অভিভূত। এ সময় তিনি অর্থমন্ত্রীকে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সহায়তা দেওয়া এবং রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে যা করা প্রয়োজন জাতিসংঘের পক্ষ থেকে সেটা করার আশ্বাস দেন।

প্রসঙ্গত, সদ্য সমাপ্ত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ৭২তম অধিবেশন চলাকালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে রোহিঙ্গা বিষয়ে আলোচনা করেন অ্যান্থনিও গুতেরেস।

বৈঠককালে তিনি আবুল মাল আবদুল মুহিতকে বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশ ও অন্যান্য দেশগুলো প্রতিকূল পরিস্থিতির শিকার হচ্ছে। এজন্য জাতিসংঘ ওইসব দেশগুলোর পাশে থাকবে।’

বৈঠকে অর্থমন্ত্রী জাতিসংঘের সংস্কার প্রস্তাব বিষয়ে আলোচনা করেন এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর অগ্রগতিকে এগিয়ে নিতে সংস্থাটির মহাসচিবকে এ বিষয়ে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান। এ সময় তিনি এলডিসিভুক্ত দেশগুলো যাতে পরবর্তী ধাপে যেতে পারে সেজন্য বাংলাদেশসহ অন্য দেশের আর্থিক ও অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করতে জাতিসংঘের সর্বোচ্চ ভূমিকা আশা করেন।

বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে মুহিত বলেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নে বাংলাদেশ কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে দারিদ্র বিমোচনে  পৃথিবীতে বাংলাদেশ একটি দৃষ্টান্তমূলক উদাহারণ।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন- জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব কাজী শফিউল আজম, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য শামসুল আলম এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে ইকোনমিক মিনিস্টার ইকবাল আব্দুল্লাহ হারুন প্রমুখ।