Fri. Aug 14th, 2020

সেনাবাহিনীর জন্য নতুন এভিয়েশন পরিদপ্তর হচ্ছে

ডেইলি বিডি নিউজঃ সেনাবাহিনীর জন্য নতুন ‘এভিয়েশন পরিদপ্তর’ গঠন করতে যাচ্ছে সরকার। এ পরিদপ্তরের প্রধান হবেন একজন কর্নেল পদমর্যাদার কর্মকর্তা। এছাড়া আর্মি এভিয়েশন-কে আর্মি এভিয়েশন গ্রুপ এবং আর্মি এভিয়েশন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ-কে আর্মি এভিয়েশন মেইন্টেন্যান্স ওয়ার্কসপ নামে পুনর্গঠন করা হচ্ছে। সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির বৈঠকে সেনাবাহিনীর নতুন পরিদপ্তর গঠন এবং দুই প্রতিষ্ঠানকে পুনর্গঠনের প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য উঠছে। বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রতিরক্ষা সচিব আখতার হোসেন ভূঁইয়া বলেন, সেনাবাহিনীর পরিধি বেড়েছে। এ কারণে নতুন করে এভিয়েশন পরিদপ্তর গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

একই সঙ্গে আর্মি এভিয়েশন এবং আর্মি এভিয়েশন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপকে পুনর্গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে। বিষয়গুলো সহসাই প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটিতে উঠবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নতুন এভিয়েশন পরিদপ্তর গঠনের জন্য বিভিন্ন পদবির ৪৫টি পদ এবং সাতটি যানবাহন সাংগঠনিক কাঠামোভুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া আর্মি এভিয়েশন পুনর্গঠন করে আর্মি এভিয়েশন গ্রুপ গঠন করতে বর্তমানে বহাল থাকা ২০৪টি পদের মধ্যে ২৬টি পদ বিলুপ্ত করার কথা বলা হয়েছে। তবে নতুন করে বিভিন্ন পদবির আরো ৫২৬টি পদ সৃষ্টি, বিদ্যমান ৩০টি যানবাহনের সঙ্গে আরো ৫২টি যানবাহন ও ২০টি বিভিন্ন প্রকারের উড়োজাহাজের সঙ্গে আরো বিভিন্ন প্রকারের ছয়টি উড়োজাহাজ সাংগঠনিক কাঠামোভুক্ত করার কথা বলা হয়েছে। সব মিলিয়ে আর্মি এভিয়েশন গ্রুপের জন্য বিভিন্ন পদবির ৭০৪ জন জনবল, বিভিন্ন প্রকারের ৮২টি যানবাহন ও বিভিন্ন প্রকারের ২৬টি উড়োজাহাজ রাখার কথা বলা হয়েছে।

এদিকে আর্মি এভিয়েশন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ-কে পুনর্গঠন করে আর্মি এভিয়েশন মেইন্টেন্যান্স ওয়ার্কসপ গঠন করতে বিদ্যমান ১৪৭টি পদের মধ্যে ৫টি পদ বিলুপ্ত করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন পদবির আরো ৩৪৮টি পদ সৃষ্টি ও বিদ্যমান ছয়টি যানবাহনের সঙ্গে আরো ৩২টি যানবাহন সাংগঠনিক কাঠামোভুক্ত করার কথা বলা হয়েছে। সব মিলিয়ে ৪৯০ জন জনবল ও ৩৮টি যানবাহন বিশিষ্ট আর্মি এভিয়েশন মেইন্টেন্যান্স ওয়ার্কসপ গঠনের জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে। প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটিতে পাঠানোর আগে বিষয়টি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য পাঠায় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কিছু শর্তে সেনাবাহিনীর প্রস্তাবগুলো অনুমোদন দেয়। এর মধ্যে নতুন এভিয়েশন পরিদপ্তরের জন্য ৪৪টি পদ, প্রস্তাবিত আর্মি এভিয়েশন গ্রুপের জন্য ৩৮৮টি পদ এবং আর্মি এভিয়েশন মেইন্টেন্যান্স ওয়ার্কসপ গঠনের জন্য ২৯৭টি পদসহ সব মিলিয়ে ৭২৯টি পদ সৃষ্টিতে সম্মতি দিয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় শর্ত দিয়ে বলেছে, আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরের মধ্যে এসব পদ সৃষ্টি করা হবে। এজন্য বছরভিত্তিক পদ সৃষ্টির তালিকা উল্লেখ করা হয়েছে। প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটিতে পাঠানো প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সার সংক্ষেপে বলা হয়েছে, সেনাবাহিনীর নতুন পরিদপ্তর গঠন এবং দুই প্রতিষ্ঠানকে পুনর্গঠনের প্রস্তাব বাস্তবায়ন করতে বছরে আবর্তক খাতে ৪৫ কোটি ৩৭ লাখ ২৪ হাজার ৯৩৪ টাকা ও অনাবর্তক খাতে ২৮ কোটি ১৮ লাখ ৪৩ হাজার ৫৩৮ টাকা ব্যয় হবে। সব মিলিয়ে আবর্তক ও অনাবর্তক খাতে মোট ৭৮ কোটি ৫৫ লাখ ৬৮ হাজার ৪৭২ টাকা ব্যয় হবে।