Mon. Apr 12th, 2021

শেষ হচ্ছে জাকির-সোহাগ অধ্যায়ঃ মার্চে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন

ডেইলি বিডি নিউজঃ মার্চ মাসেই ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শোভাযাত্রার উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, নেত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি বলেছেন ছাত্রলীগকে সম্মেলনের প্রস্তুতি নিতে। নেত্রীর ইচ্ছা আগামী মার্চে স্বাধীনতার মাসে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলনটি যেন হয়।

দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ছাত্রলীগের এ কমিটির আমলে কিছু নেগেটিভ বিষয় থাকলেও অর্জন ছিল সবচেয়ে বেশি। তাদের আমলে সংগঠন বিশাল রূপ নিয়েছে। এটা তাদের অর্জন। আমি ছাত্রলীগকে বলব, অনতিবিলম্বে নির্বাহী কমিটির সভা ডেকে জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি নিন। নেত্রীর ইচ্ছা, আগামী মার্চ মাসে সম্মেলন হোক। এ সময় তিনি ছাত্রলীগকে সম্মেলনের তারিখ ঠিক করতে বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগে বিশৃঙ্খল লাখো কর্মীর দরকার নেই। শৃঙ্খলকর্মী কম হলেও সমস্যা নাই।

ছাত্রলীগকে আরো সুশৃঙ্খল ও সুসংগঠিত হতে হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, গুটি কয়েকের জন্য সরকারের অর্জন ম্লান হতে পারে না। যারা অপকর্ম করবে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। যে ছাত্রলীগের অতীত গৌরবময়, সেই ছাত্রলীগের বর্তমানে কলঙ্কিত হতে পারে না। যারা অপকর্ম করবে তাদের ছাত্রলীগে থাকার অধিকার নেই।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ছিল বৃহস্পতিবার। কিন্ত অফিসিয়াল দিন হওয়ায় জনদুর্ভোগের বিষয়টি বিবেচনা করে এবং ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উপলক্ষে সংগঠনের আলাদা কর্মসূচি থাকায় ৪ জানুয়ারির পরিবর্তে আজ শনিবার সরকারি ছুটির দিনে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আনন্দ শোভাযাত্রা হয়েছে।

এ ছাড়া কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ৮ জানুয়ারি দুপুর ২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দুস্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ, ৯ জানুয়ারি ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি এবং ১১ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলায় ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হবে।