|
এই সংবাদটি পড়েছেন 409 জন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্যারিসে সিলেট উৎসব

ডেইলি বিডি নিউজঃ ‘প্রাণের টানে শিকড়ের গানে, এসো মাতি মিলন উৎসবে’ স্লোগানে ফ্রান্সের প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হল অর্ধ দিনব্যাপী ‘সিলেট উৎসব’।

রবিবার প্যারিসের পান্তা হলে জালালাবাদ এসোসিয়েশন ফ্রান্সের আয়োজনে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী ও এনআরবি ব্যাংক এবং আল হারামাইন গ্রুপের চেয়ারম্যান মাহতাবুর রহমান নাসির।

এসময় আরো উপন্থিত ছিলেন ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন,  কাউন্সেলর ও হেড অব চ্যান্সেরী হযরত আলী খান, জালালাবাদ এসোসিয়েশন যুক্তরাজ্যের আহবায়ক মুহিবুর রহমান মুহিব সহ বাংলাদেশী কমিউনিটির বিশিষ্টজনেরা।

জালালাবাদ এসোসিয়েশনের বিশ্বব্যাপী সিলেট উৎসব পালনের ধারাবাহিকতায় ঢাকা, কলকাতা, নিউ ইয়র্ক ও টরেন্টোর পর প্যারিসে এই উৎসব অনুষ্ঠিত হল।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে এসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ হেনু মিয়ার সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন উপস্থাপনায় প্রথমেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন এসোসিয়েশনের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুর রহমান।

এরপর মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে সকলে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়।

পরে কার্যনির্বাহী কমিটির সকল সদস্যকে শপথ বাক্য পাঠ করান হয়।

অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন ট্রেজারার আজাদ মিয়া। এ সময়  জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালি ও যুক্তরাজ্যের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ, ফ্রান্সের বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ ও বিপুল সংখ্যক ফ্রান্স প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন।

উৎসবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রবাসী কল্যানে ও সমাজে, অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে রাশেদা কে চোধুরী, কাজী ইমতিয়াজ হোসেন,  মাহতাব উদ্দিন নাসির, মুহিবুর রহমান,  টি এম রেজা,  ফারুক খান,  অলি আহমেদ শামীম সহ মোট ৯ জন কে সম্মাননা স্বারক প্রদান করা হয় ।

প্রধান অতিথি রাশেদা কে চৌধুরী এসোসিয়েশনের বিশ্বব্যাপী যে সেবা কার্যক্রম রয়েছে তা উপস্থিত সকলকে অবহিত করেন এবং নানা গৃহীত কার্যক্রম তুলে ধরেন। বিশেষ করে তিনি সমাজে নারীর ক্ষমতায়ন ও অংশগ্রহন নিশ্চিতকরণে সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আল হারামাইন গ্রূপ অব কোম্পানি ও এনআরবি ব্যাংকের চেয়ারম্যান মাহতাবুর রহমান নাসির প্যারিসে এসোসিয়েশনের একটি অফিস স্থাপন করে প্রবাসীদের কল্যানে কাজ করার জন্য তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন এবং  উৎসব সফল করায় ফ্রান্স প্রবাসীসহ আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন তার বক্তব্যে বাংলাদেশের উন্নয়নে সিলেট অঞ্চলের জনগণের অবদানের বেশ কিছু উদাহরণ দিয়ে এই ধারা অব্যাহত রাখার জন্য এবং জালালাবাদ এসোসিয়েশনকে সব ধরণের সহযোগিতা প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে জালালাবাদ এসোসিয়েশন ফ্রান্স ও সিলেট বিভাগের ইতিহাস ঐতিহ্য ভিত্তিক দুটি ডকুমেন্টরি প্রদর্শিত করেন অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্যারিস বার্তা সম্পাদক মাম হিমু।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে ছিল বাংলাদেশ থেকে আসা জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী পলাশ ও ফ্রান্সের স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে সিলেটের অতিহ্যবাহী “ধামাইল” নাচে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দের অংশগ্রহণে এক আনন্দঘন মুহূর্তের সূচনা হয়।

সব মিলিয়ে দর্শকদের উপচে পড়া উপস্থিতিতে সিলেট উৎসব যেন প্যারিসের বুকে এক টুকরো বাংলাদেশে পরিণত হয়েছিল।

অনুষ্ঠান শেষে  মাহতাবুর রহমান নাসেরের সৌজন্যে সোনার বাংলা রেস্টুরেন্টে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।