Wed. Oct 28th, 2020

কথিত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা “পাঙ্গাস” আটক

ডেইলি বিডি নিউজঃ নিজেকে সরকারি দলের একজন সক্রিয় নেতা পরিচয় দিয়ে প্রায়ই ‘অস্ত্রবাজি’ দেখাতেন ক্যাডার বাবুল হোসেন পাঙ্গাস। বিভিন্ন সময়ে তার কর্মকাণ্ডে দলীয় নেতাকর্মীরাও ভীত হয়ে যেতেন। নিজের পরিচয়ে বলতেন সিলেট স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা। আলোচিত সেই ‘নেতা’কে এবার অস্ত্রসহ আটক করেছে র‌্যাব।

রোববার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সিলেট নগরীর জালালাবাদ পীরমহল্লা এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় একটি ধারালো দেশীয় অস্ত্রও পাওয়া যায় বলে জানা গেছে।

র‌্যাবের মিডিয়া সূত্র সোমবার দুপুর ১২টার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

সূত্রমতে, যুদ্ধাপরাধী সাকা-মুজাহিদের ফাঁসির পর জামায়াতের ডাকা হরতালের প্রতিবাদে সিলেট জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ আয়োজিত হরতালবিরোধী মিছিলে কাঁধে কালো ব্যাগ নিয়ে অংশ নিয়েছিলেন বাবুল হোসেন পাঙ্গাস। জিন্দাবাজার এলাকায় পৌঁছালে মিছিলের প্রথম সারিতে অবস্থান করা নিয়ে দুই কর্মীর মধ্যে হাতাহাতির ঘটনায় পাঙ্গাস কাঁধে ঝোলানো ব্যাগ নামিয়ে অস্ত্র বের করার চেষ্টা করেন। এ সময় দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যেই আতঙ্ক দেখা দেয়। অবশ্য পরে সিনিয়র নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এ সময় মিছিলে অংশ নেয়া বেশ কয়েকজন নেতা জানিয়েছিলেন, পাঙ্গাসসহ অন্যান্যদের ব্যাগে অস্ত্র ছিল। তিনি পীরমহল্লায় একসময় ছাত্রলীগের ক্যাডার হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। এখন এলাকায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ হিসেবে তার পরিচয়।

শুধু হরতালবিরোধী মিছিলেই নয়। এর আগেও একাধিকবার পাঙ্গাস নগরীতে সশস্ত্র মহড়া দিয়েছে। পীরমহল্লা ও আশপাশের ছাত্রলীগের এলাকাভিত্তিক দ্বন্দ্বে আলোচনায় আসেন বাবুল হোসেন পাঙ্গাস।

প্রায় দু’বছর আগেও তিনি নগরীর দর্শন দেউড়ি এলাকায় নিজ দলের কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষকালেও অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেন। ওই সংঘর্ষের সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলিও চালিয়েছিল। ওই ঘটনায় পাঙ্গাসের বিরুদ্ধে একটি মামলাও দায়ের করা হয়।

এরপর হাউজিং এস্টেট এলাকায় অবস্থিত জামায়াতের দুই নেতার বাসায় আগুন দেয়ার ঘটনায় পাঙ্গাস আলোচিত হন। ওই সময় হাউজিং এস্টেট এলাকায় পাঙ্গাসকে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে দেখা যায়।