|
এই সংবাদটি পড়েছেন 207 জন

নুসরাতকে হত্যাকারী ঘাতকদের ছবি প্রকাশ

ডেইলি বিডি নিউজ:: অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার নির্দেশে নুর উদ্দিনের পরিকল্পনায় পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয় নুসরাতকে। জবানবন্দিকে স্বীকার করেছে খোদ নূর উদ্দিন। শনিবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে পিবিআই সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, নুসরাতের গায়ে আগুন দেয়ার সময় ছয়জন উপস্থিত ছিল আর পুরো ঘটনায় ১৩ জন জড়িত।

নুসরাত রাফির সঙ্গে নৃশংসতার পর থেকেই একই প্রশ্ন ঘুরে ফিরে বেশ কয়েকটি নাম সামনে আসছিল। ঘটনার অনুসন্ধানে অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা, নূর উদ্দিন, কাউন্সিলর মকসুদ আলমসহ কয়েকজন বেরিয়ে আসে। এ মামলায় আটক হয় এজহারভুক্ত সাত আসামি। ওসির গাফিলতির কারণে তাকে প্রত্যাহার করা হয়। আর মামলার দায়িত্ব দেয়া হয় পিবিআইকে।

তদন্তের দায়িত্ব পাবার চার দিনের মাথায় সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই প্রধান জানান, নুর উদ্দিনসহ ১৩ জন জড়িত এই বর্বরতায়।তিনি বলেন, আমাদের এই ঘটনায় ১৩ জনের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছি। আরো বাড়তে পারে। এর মধ্যে সিরাজসহ ৮ জন গ্রেফতার আছে।

মূলত সিরাজউদৌলার বিরুদ্ধে মামলা করা কাল হয়েছিল নুসরাতের জন্য। এরপরেই পরিকল্পনা করা হয় তাকে হত্যার। এর আগে নুসরাতকে প্রেমের প্রস্তাবে প্রত্যাখ্যান হওয়ায় শামিমও যুক্ত হয় দলে। আগে থেকেই বোরখা পরে ছাদে অপেক্ষা করছিল হত্যাকারীরা। নুসরাতের সহপাঠী শম্পাই তাকে ডেকে ছাদে নিয়ে যায়। এর আগে অধ্যক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে মূল পরিকল্পনা ঝালিয়ে নেয় নূর।

পিবিআই প্রধান বলেন, নুরউদ্দিনের নেতৃত্বে ৫ জনের মধ্যে নুরউদ্দিন নিজে। ৭ নম্বর আসামি হাফেজ আব্দুল কাদেরসহ আরো ৩ জন গেট পাহারা দেয়। আরেক জনের নাম আসছে তিনিও এই ঘটনায় জড়িয়ে যায় সেও ভেতরে ছিল।মামলার চার্জশিট দ্রুত সময়ের মধ্যে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পিবিআই প্রধান।