|
এই সংবাদটি পড়েছেন 86 জন

ধর্ষণের সময় বাবু মিয়ার গোপনাঙ্গ কেটে গাঢাকা দিলেন গৃহবধূ!

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :: গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ধর্ষণের সময় এক ব্যক্তির পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছেন এক গৃহবধূ। এরপর গুরতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তার জ্ঞান ফেরেনি বলে জানা গেছে।

গোপনাঙ্গ হারানো ব্যক্তির নাম বাবু মিয়া (৪০)। তিনি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের ফাঁসিতলা বাজারের চায়ের দোকানদার। মঙ্গলবার রাতে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ফাঁসিতলা এলাকায় ব্যাপক আলোচনার ঝড় বইছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি একই গ্রামের এক গৃহবধূর কাছে সুদের উপর টাকা ধার নেন বাবু মিয়া। ওই টাকা লেনদেনের মাধ্যমে বাবু মিয়ার সঙ্গে গৃহবধূর সম্পর্ক তৈরি হয়। সম্পর্কের সূত্র ধরে মঙ্গলবার রাতে কৌশলে ওই গৃহবধূর ঘরে ঢুকে তার মুখ চেপে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় বাবু। এ সময় নিজের সম্ভ্রম রক্ষার জন্য ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাবু মিয়ার পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলেন গৃহবধূ।

এরপর বাবু মিয়ার আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে এ ঘটনা দেখে হতভম্ব হয়ে যান। তাৎক্ষণিক তারা বাবুকে উদ্ধার করে বগুড়া ঠেঙ্গামারা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে এখনো তার জ্ঞান ফেরেনি।

এদিকে এ ঘটনার পর লোকলজ্জা ও নিরাপত্তার কারণে গাঢাকা দিয়েছেন ওই গৃহবধূ।

গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমরা বিষয়টি লোকমুখে শুনেছি। তবে এ ঘটনায় কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।