|
এই সংবাদটি পড়েছেন 86 জন

জকিগঞ্জের দুই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তি

জকিগঞ্জ প্রতিনিধিঃজকিগঞ্জের খলাছড়া ইউনিয়নের ডিগ্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে প্রধান শিক্ষিকা খাদেজা চৌধুরী ও সহকারি শিক্ষিকা হাসনা বেগমের মারামারির ঘটনায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছেন সিলেট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বায়োজিদ খাঁন।

অফিস আদেশে তিনি সহকারী শিক্ষিকা হাসনা বেগমকে বিরশ্রী ইউনিয়নের শহীদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্ট্যান্ড রিলিজ করেছেন। চলতি মাসের ৫ তারিখের মধ্যে নতুন কর্মস্থলে যোগদান করতে তাকে বলা হয়েছে। অন্যথায় তাকে কর্ম বিমুক্ত বলে গণ্য করা হবে উল্লেখ করেন আদেশে।

একই ঘটনায় জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সুপারিশে প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয় থেকে প্রধান শিক্ষিকা খাদেজা চৌধুরীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজুর প্রস্তুতি চলছে। এ নিয়ে বিভাগীয় উপপরিচালক এ.কে.এম. সাফায়েত আলম স্বাক্ষরিত একটি পত্র পাঠানো হয়েছে প্রধান শিক্ষিকা খাদেজা চৌধুরীর কাছে।

প্রেরিতপত্রে নির্দেশ দিয়ে বলা হয়েছে, বিধিমালার ৪ এর ৩ উপ-বিধি (১) (ঘ) অনুযায়ী কেন খাদেজা চৌধুরীকে চাকরী থেকে বরখাস্ত করা হবেনা বা বিধিমালার আওতায় অন্যকোন যথোপযুক্ত ব্যবস্থা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবেনা তার সন্তোষজনক জবাব পত্রপ্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে উপপরিচালকের কার্যালয়ে দাখিল করতে হবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ এপ্রিল জকিগঞ্জের ডিগ্রী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে প্রধান শিক্ষিকা খাদেজা চৌধুরী ও সহকারি শিক্ষিকা হাসনা বেগম মারমারি করেন। এ নিয়ে উপজেলা জুড়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠে। অনেকে বিদ্যালয়ের মানসম্মত পাঠদান নিয়ে প্রশ্ন তুলে দোষী শিক্ষিকার শাস্তির দাবি জানান।