|
এই সংবাদটি পড়েছেন 70 জন

ইন্টার্ন ডাক্তারের মিথ্যাচারের বিবৃত্তি দিলেন সারোয়ার হোসাইন চোধুরী

ডেইলি বিডি নিউজঃ অসয্য যন্ত্রণায় কাতরানো রোগি কে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া রোগীর আত্ব চিৎকারে ব্যতিত অভিভাবক হিসেবে আমার মুখের ভাষা খুবই খারাপ ছিলো এটাই আমার অপরাধ , ইন্টার্ন চিকিৎসক এর প্রতি কেনো এতো উত্তেজিত হলাম এখানে ওস্পষ্ট কিছু আছে কি না এই কথাটি একবারও কেউ জানতে চাননি।

ইন্টার্ন চিকিৎসক লেখাপড়া করে আদৌও ডাক্তার হতে পেরেছেন কি না তা নিয়ে চরম সন্দেহ রয়েছে,
তবে তিনি লেখাপড়া করে একজন খাঠি মানের মিথ্যাবাদী হতে পেরেছেন বটে এখানে কোন সন্দেহ নেই ,
তিনি নিজের মনুষ্যত্ব কে বিষর্জন দিয়ে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে এখানে(ধর্ষন এবং ছুরি) এই দুটি স্পর্শ কাতর বিষয় খুব সহজে ঢুকিয়ে দিয়েছেন এতে উনার মানসম্মান এ একটু ও স্পর্শ করে নি তা নিয়ে আমি উনার প্রসংশায় প্রসংশিত।তার প্রমান ভিডিও তে সেখানে কোন যায়গায় ধর্ষনের উল্লেখ এবং ছুরি দেখা যায় নি।

আপনি একজন ইন্টার্ন চিকিৎসক হয়ে এদেশের অসংখ্য অগণিত মানুষের চিকিৎসা সেবা বাস্তবায়নের লক্ষে যিনি কাজ করে যাচ্ছেন তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, আপনি উনাকে নিয়েও কটুক্তি করবেন এটা আপনার অপরাধ নয়, আর ছাত্রলীগের একজন কর্মী হিসেবে আমার নেতৃীর পক্ষে প্রতিবাদ করলেই এটা কি অপরাধ?

প্রাইভেট মেডিক্যাল এ রোগী দেখাতে গিয়ে ইন্টার্ন ডাক্তারদের অবহেলা আর বিড়ম্বনার শিকার হয়ন নি এমন কয়জন অবিভাবক আছেন?

তাদের ভুল চিকিৎসায় প্রতিনিয়ত অসংখ্য মানুষ শারিরীক -আর্থীক ও মানুষিক হয়রানির শিকার হচ্ছে এবং এর ভূরি ভূরি প্রমান ও রয়েছে। এসবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা যাবে না।

সাদা কাপড়ের এপ্রন পরিহিত( হবু ডাক্তার) তারা কি মঙ্গল গ্রহ থেকে আগতো তাদের কি কোনো ভুল-ত্রুটি রোগীর প্রতি অবহেলার প্রমান নেই? আর এজন্য অসহায় রোগীর অবিভাবক হিসেবে এসবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা কি জগন্য অপরাধ?

তাইতো ডাক্তারের নির্যাতনের শিকার হয়ে অপার বাংলার একজন প্রতিবাদী গায়ক এবং গীতিকার তার গানে- এমন প্রতিবাদ করেছিলেন————

“ডাক্তার মানে সে-তো মানুষ নয়, আমাদের কাছে সেতো ভগবান,
কসাই আর ডাক্তার কিটুকি পরাচ্ছে বুজছেনা
গর্দভ জনগন”

তাই আজকে যদি এই প্রতিবাদের কারনে আমি সারোয়ার হোসেইন চৌধুরী অপরাধী হয়ে থাকি, তাহলে মনে রাখবেন আগামী কাল আপনাকে ও এই অপরাধে অপরাধী হতে হবে।