|
এই সংবাদটি পড়েছেন 49 জন

এসপি হতে ফিটলিস্ট পরীক্ষা দিতে হবে

ডেইলি বিডি নিউজঃ পুলিশ সুপার (এসপি) পদে পোস্টিং পেতে পুলিশকেও ফিটলিস্ট পরীক্ষা দিতে হবে। জেলা প্রশাসক (ডিসি) হওয়ার জন্য প্রশাসন ক্যাডার কর্মকর্তাদের পরীক্ষা দিয়ে ডিসি ফিটলিস্টে অন্তর্ভুক্ত হতে হয়। কিন্তু এসপি হতে এ রকম কোনো নিয়ম বা নীতিমালা ছিল না। বিদ্যমান প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখন এসপি ফিটলিস্ট নীতিমালা প্রণয়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত খসড়া চূড়ান্ত হয়েছে। আরও যাচাই-বাছাই শেষে শিগগির নীতিমালা জারি হবে।

এর ভিত্তিতে পুলিশ সুপার পদের জন্য পরীক্ষা নিয়ে ফিটলিস্ট তালিকা করা হবে। এরপর ওই তালিকা থেকে এসপি পদে পদায়ন করা হবে। সূত্রমতে, ডিসি ফিটলিস্টের ন্যায় এসপি ফিটলিস্ট নীতিমালায় এ পদে পরীক্ষা দেয়ার যোগ্যতা অর্জনের বিষয়ে বেশ কিছু শর্ত থাকছে। উল্লেখযোগ্য বিষয়ের মধ্যে রয়েছে, বিসিএস পুলিশ ক্যাডারের ৫ম গ্রেডে পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের মধ্যে যোগ্যতা তালিকা প্রণয়ন করে এসপি নিয়োগ দেয়া হবে।

প্রত্যাশী কর্মকর্তাদের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সহকারী পুলিশ সুপার পদে কমপক্ষে ৩ বছর চাকরি করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। অথবা এর যে কোনো একটি পদে উল্লিখিত সময়কাল চাকরি করতে হবে। যাদের বয়সসীমা সর্বোচ্চ ৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পূর্ববর্তী ৫ বছরের বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদনের রেকর্ড এবং সমগ্র চাকরি জীবনের শৃঙ্খলা প্রতিবেদন সন্তোষজনক হতে হবে। উত্তম শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি সম্পর্কে সম্যক ধারণা, পর্যাপ্ত জ্ঞান এবং বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা থাকতে হবে।

কর্মকর্তাগণকে ফৌজদারি কার্যবিধি, দণ্ডবিধি, সাক্ষ্য আইন, ভূমি প্রশাসন, অন্যান্য মাইনর অ্যাক্টস, পুলিশ আইন, পুলিশ প্রবিধানমালা, তথ্য প্রযুক্তি সংক্রান্ত অপরাধ ও অন্যান্য বিধিবিধান সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হতে হবে। অভ্যন্তরীণ এবং বিদেশে লব্ধ উচ্চতর প্রশিক্ষণের মূল্যায়ন বিবেচনাসহ চাকরিকালের সততা ও পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নেবে ফিটলিস্ট কমিটি।

এছাড়া জেলা পুলিশ সুপার নিয়োগের উদ্দেশ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে ‘যোগ্যতা তালিকা’ প্রণয়নে কমিটি গঠন করা হবে। গঠিত কমিটি প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করবে। সাক্ষাৎকার গ্রহণকালে কর্মকর্তাদের মেধা, প্রজ্ঞা ব্যক্তিত্ব, স্বাস্থ্য, আগ্রহ, ভাষাজ্ঞান, বাচনভঙ্গি, উপস্থাপনার পারদর্শিতা দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণে সক্ষমতা এবং প্রয়োজনীয় অন্যান্য যোগ্যতা যাচাইপূর্বক প্রার্থীর নাম সুপারিশ করবে। একই কর্মকর্তা ২টির বেশি জেলায় এসপি পদে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না এবং এসপি হিসেবে তার কার্যকাল হবে সর্বোচ্চ ৩ বছর।

এসপি পদে পদায়ন প্রত্যাশী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার পরিবার কর্মস্থলে থাকতে চায়- এমন আগ্রহকে পুলিশ সুপার পদের জন্য অতিরিক্ত যোগ্যতা হিসেবে বিবেচনা করা হবে। বিবেচনায় নেয়া হবে পুলিশ স্টাফ কলেজের নির্ধারিত প্রশিক্ষণ কোর্সের মূল্যায়ন প্রতিবেদন।

সাক্ষাৎকার কার্যক্রমে নম্বর বণ্টনের মধ্যে বিগত পাঁচ বছরের বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদনের গড় ৫ নম্বর, সমগ্র চাকরিজীবনে কোনো শাস্তি না থাকার জন্য ৫ নম্বর, সাক্ষাৎকারের জন্য ৫ নম্বর, দলগত আলোচনায় ২০ নম্বর এবং একক প্রেজেনটেশনে থাকবে আরও ২০ নম্বরের মূল্যায়ন। এর মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বাচনভঙ্গি, উপস্থাপনা পারদর্শিতা, বাংলা ও ইংরেজি ভাষাজ্ঞানের দক্ষতা মূল্যায়ন গুরুত্ব পাবে।

সূত্র জানায়, ফিটলিস্ট পরীক্ষা গ্রহণ কমিটির প্রধান হতে পারেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এছাড়া পুলিশ সুপার পদে নিয়োগের জন্য উপযুক্ত কর্মকর্তার ‘যোগ্যতা তালিকা’ প্রণয়নে সংশ্লিষ্ট বাছাই কমিটিকে সহায়তা প্রদানে ‘ডিসকাসন’ ও ‘একক প্রেজেনটেশন’ কার্যক্রম মূল্যায়নে যুগ্মসচিব/ডিআইজি/অতিরিক্ত ডিআইজি পর্যায়ের ১৬ জন কর্মকর্তার সমন্বয়ে ৪টি মূল্যায়নকারী বোর্ড গঠন করা হবে। প্রতিটি বোর্ডে ৪ জন করে সদস্য থাকবেন।

গ্রুপ ডিসকাসন ও একক প্রেজেনটেশন শেষে টপিক নির্ধারণ করা হবে এবং গঠিত বোর্ড ডিসকাসন ও প্রেজেনটেশন শেষে বোর্ডের সদস্যগণের স্বাক্ষরসহ প্রস্তুতকৃত মূল্যায়নপত্র বোর্ডের সিনিয়র সদস্য বাছাই কমিটি বা ফিটলিস্ট কমিটির কাছে হস্তান্তর করবেন। বাছাই কমিটি সকল মূল্যায়নপত্রের নম্বর একত্রিত করে চূড়ান্ত মূল্যায়নপত্র প্রস্তুত করবে।

এরপর কর্মকর্তাগণের জ্যেষ্ঠতা অনুযায়ী ‘যোগ্যতা তালিকা’ ফিটলিস্ট প্রণয়নের মাধ্যমে শূন্যপদে এসপি নিয়োগের জন্য কমিটি সুপারিশ করবে। এ সংক্রান্ত সার-সংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দেয়ার পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি হবে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে ৬৪ জেলাতে পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন ইউনিটে মোট ৩৩৫টি পুলিশ/সমমানের পদ রয়েছে। এর মধ্যে জেলায় পুলিশ সুপারের পদটি মৌলিক অপারেশনাল পদ। জেলা পর্যায়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, বিচার প্রশাসনে সহায়তা প্রদান, জঙ্গিবাদ নির্মূলসহ জনগুরুত্বপূর্ণ কাজে জেলা পুলিশ সুপারগণ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

অপরদিকে প্রশাসন ক্যাডার কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে জেলায় ডিসি হিসেবে পদায়ন করা হয়। এজন্য ডিসি ফিটলিস্ট পরীক্ষা নেয়ার বিধান রয়েছে। আছে নীতিমালা, যা সর্বশেষ হালনাগাদ করা হয়েছে ২০১৫ সালের ১২ অক্টোবর। সেখানেও ফিটলিস্ট পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা হিসেবে প্রয়োজনীয় নানা শর্ত যুক্ত করা আছে।