|
এই সংবাদটি পড়েছেন 20 জন

সিলেট নগরীতে স্প্রে পার্টির হানা

ডেইলি বিডি নিউজঃ  সিলেটে ঈদের আগেই স্প্রে পার্টির তৎপরতা শুরু হয়েছে। বুধবার (১৫ মে) রাত ১১টায় নগরীর কুমারপাড়ায় কানাইঘাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের বাসায় স্প্রে মেরে ডাকাতির চেষ্টা চালিয়েছে।বাসার সবাই জেগে থাকায় রক্ষা পেয়েছেন। খবর পেয়ে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ র‌্যাব ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। প্রবাসী গোলাপ মিয়ার মালিকানাধীন কুমারপাড়ার বি-ব্লকের ৪০ নং বাসা বুরহানমঞ্জিলের নিচতলায় এ ঘটনা ঘটে।

বুরহান মঞ্জিলের ভাড়াটিয়া কানাইঘাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ শাসুল আলম মামুন জানান, বাসার পুরুষ সদস্যরা তারাবির নামাজে ছিলেন। এছাড়া আজ বৃহস্পতিবার (১৬ মে) তিনি ওমরাহ পালনে সৌদিআরব যাচ্ছেন। এরজন্য কিছু আত্মীয় স্বজন বাসায় অবস্থান করছেন। রাত সাড়ে ১০টার দিকে নিচতলার বেড রুমে বসে যখন গল্প করছিলেন নারী সদস্যরা, হঠাৎ বেলকনি ও বাথরুমের উপরের ছোট্ট জানালার গ্রিলের ভেতরে হাত প্রবেশ করে এক যুবককে স্প্রে মারতে দেখেন। দেখামাত্র মহিলার চিৎকার দিয়ে দ্রুত রুম থেকে বেরিয়ে পড়েন। সাথে সাথে ঐ যুবক দেয়াল টপকিয়ে পালিয়ে যায়। তবে সচেতন থাকায় কারো কিছু হয়নি।

খবর পেয়ে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তিনি বলেন, প্রতিবছর ঈদ ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে নগরীতে অজ্ঞান পার্টি, স্প্রে পার্টিসহ নানা অপরাধ চক্রের তৎপরতা শুরু হয়। এবার প্রথমবারের মতো কলেজ অধ্যক্ষের বাসায় হানা দিলেও সফল হতে পারেনি। মেয়র সবসময় দরজা-জানালা লক করে রাখাসহ নগরবাসীকে সচেতন থাকার আহবান জানান।

অন্যদিকে স্প্রে পার্টির তৎপরতার খবর পেয়ে র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এসময় র‌্যাব-৯ এর ডিএডি নজরুল ইসলামও নাগরিকদের সচেতন থাকার আহবান জানান।

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিল্লুর রহমান উজ্জ্বল জানান, এলাকার তরুণদের বেশি সচেতন থাকতে হবে। যে যে স্পটে বৈদ্যুতিক লাইট নেই, সেখানে দ্রুত লাইট লাগানো হবে। সুবহানীঘাট পুলিশ ফাড়ির সদস্যরাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।