|
এই সংবাদটি পড়েছেন 22 জন

নগরীর কোর্টপয়েন্ট-জিন্দাবাজার সড়কে রিকশা-লেগুনা বন্ধ

ডেইলি বিডি নিউজঃ নগরীর যানজট নিরসনে কোর্টপয়েন্ট-জিন্দাবাজার সড়কে নিষিদ্ধ হলো রিক্সা-লেগুনা চলাচল। তবে সিটি কর্পোরেশনের পূর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি চৌহাট্টা থেকে জিন্দাবাজার হয়ে কোর্ট পয়েন্ট পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কে রিক্সা-লেগুনাসহ আরো কিছু যানচলাচল নিষিদ্ধ হওয়ার কথা থাকলেও আপাতত শুধু কোর্টপয়েন্ট-জিন্দাবাজার সড়কে রিক্সা-লেগুনা চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও ট্রাফিক কর্মকর্তারা উপস্থিত হয়ে নতুন এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করেন।

সিলেট সিটি সিলেট সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা শাহাব উদ্দিন শিহাব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মেয়র আরিফের বরাত দিয়ে শাহাব উদ্দিন শিহাব জানান- প্রাথমিকভাবে শুধু কোর্টপয়েন্ট-জিন্দাবাজার সড়কে রিক্সা ও লেগুনা চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যা বাস্তবায়নে ট্রাফিক সদস্যদের নির্দেশনা দিয়েছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ। এছাড়া এর কার্যকরীতা অবজারবেশন করছে সিসিক। সমস্যা এবং সম্ভাবনা বিবেচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে।

এর আগে নগরবাসীর যাতায়াত সুবিধার্থে গত ০১ মে (বুধবার) রাতে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) ও সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) ট্রাফিক শাখা যৌথভাবে চৌহাট্টা-জিন্দাবাজার হয়ে কোর্ট পয়েন্ট পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কে রিক্সা-লেগুনাসহ আরো কিছু যানচলাচল নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে। এরপর প্রথম রমজান থেকে তা কার্যকর হওয়ার কথা থাকলেও নানা দিক বিবেচনা করে তা বাস্তবায়ন করা হয়নি।

সিসিক সুত্রে জানা গেছে- নগরীর জিন্দাবাজার-কোর্ট পয়েন্ট সড়কে একদিক থেকেই যানবাহন চলাচল করছিল। তবে রমজান মাসে নগরবাসীর স্বার্থে এবং সড়ককে হকারমুক্ত রাখতে এ সড়ক দুই লেন করা হয়েছে। এর ফলে উভয় দিক থেকেই যানবাহন চলাচল করতে পারবে। তবে আপাতত এ সড়কে রিকশা ও লেগুনা কিংবা ট্রাক চলাচল করতে পারবে না।

নগর কর্তৃপক্ষ জানায়- সিসিক ও এসএমপির ট্রাফিক শাখা মিলে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর ফলে নগরীর সবচেয়ে ব্যস্ততম এই সড়কে যানজট কমবে, নগরবাসী স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচল করতে পারবেন। এছাড়া পর্যটকদের আনাগোনা যেহেতু জিন্দাবাজার এলাকায় বেশি, সেহেতু তারাও স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে নগরীর করিম উল্লাহ মার্কেটের সামনের কালঘাট অভিমুখি ডিভাইডার খুলে দেয়ার পর পুনরায় বন্ধ করে দিয়েছে সিসিক। ওই এলাকার যানজট কমাতে যাতায়াতের প্রয়োজনে বিকল্প রাস্তা ব্যবহার করতে সিসিকের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।