|
এই সংবাদটি পড়েছেন 41 জন

নগরীর আখালিয়ায় টিলাকাটায় বাধা দেয়ায় হামলা, আহত ২

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ নগরীর আখালিয়া এলাকায় অবাধে চলছে টিলাকাটার মহাউৎসব। শনিবার সকালে এই অবৈধভাবে টিলাকাটায় বাধা দেয়ায় টিলাখেকোদের হামলায় দুই সহোদর আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে একজন সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালের ৪র্থ তলার ৭ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। আহত দুই সহোদর রাজু দাস চঞ্চল (৩১) ও চন্দন দাস (২৭) ব্রাহ্মণশাসনের রমা কান্ত দাস ছানার ছেলে। শনিবার (১৮ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় আখালিয়া এলাকার ব্রাহ্মণশাসনের রমা কান্ত দাস ছানার বাড়ির পাশে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে আহত রাজু দাস চঞ্চল জালালাবাদ থানায় একটি অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে- রাজু দাস চঞ্চলের বাড়ী টিলার উপরে অবস্থিত। আখালিয়া এলাকার ব্রাহ্মণশাসনের নিশি কান্ত দাস (৫৮), জগদিশ চন্দ্র দাস (৫৬), কৃতিশ দাস (৫২), পার্থ দাস (২৭), জীবন দাস (২৬), অঞ্জন দাস (৩৫), ভূষন দাস বিশু (৩৩), সুজিত দাস (৩০) গং বেশ কয়েকবার তাদের টিলা অবৈধভাবে কেটে ফেলায় বর্তমানে তারা ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাস করছেন। রাজু দাস চঞ্চল বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে একাধিকবার বলেছিলেন। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গও তাদের সর্তক করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় অবৈধভাবে টিলা কাটতে শুরু করে এবং তাদের বাড়ির পাশে থাকা একটি গাছ তুলে ফেলে। তখন রাজু টিলা কাটতে বাধা দিলে টিলাখেকোরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে বাড়ির সবাইকে মারপিট করে।
এক পর্যায়ে জীবন দাস লোহার পাইপ রাজুর ছোট ভাই চন্দন দাসের মাথায় আঘাত করে। সে রক্তাত্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে যায়। সেই সময় পার্থ দাস রাজুর গলা চেপে ধরিয়া শ্বাসরোধ করে মারার চেষ্টা করে। তাদের রক্ষা জন্য তাদের মা স্বপ্না রানী দাস আসলে অঞ্জন দাস ও ভূষন দাস তাদেরকেও মারপিট করে।
পরে নিশি কান্ত দাসের নির্দেশে রাজুর ঘর পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন লাগানোর চেষ্টা করে। এসময় তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে।
পরে টিলাখেকোরা যাবার সময় প্রকাশ্যে হুমকি দেয় এই ঘটনার বিষয়ে কোনরূপ মামলা মোকাদ্দমা করলে পরিবারের সবাইকে পর্যায়ক্রমে খুন করবে।
এসময় উপস্থিত লোকজন রাজু ও চন্দনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। কর্তব্যরত চিকিৎসক রাজুকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেন। তার ভাই চন্দনকে হাসপাতালে ভর্তি দেন। এনিয়ে রাজুর পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছেন।

এ ব্যাপারে রাজু দাস চঞ্চল বলেন- আখালিয়া এলাকার ব্রাহ্মণশাসনের নিশি কান্ত দাস ও জগদিশ চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে টিলাকাটেন। আমরা তাতে বাধা দেয়ায় আমাদের উপর হামলা করে তারা।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন জালালাবাদ থানার ওসি শাহ মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ। তিনি বলেন- একটি অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে। তদন্তে প্রমাণিত হলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।