|
এই সংবাদটি পড়েছেন 58 জন

হাওরপারের শিক্ষার্থীদের দেখার যেন কেউ নেই!

জামালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নর পৈন্ডুপে হাওরপাড়ের গড়ে উটা শিক্ষা প্রতিষ্টানে দ্বীজন্দ্র কুমার নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের লেখা-পড়া করছে হাওর পাড়ের দরিদ্র পরিবারের হাজার হাজার শিক্ষার্থীরা। এই শিক্ষা প্রতিষ্টানের সাথে নেই হাওরপাড়ের দ্বীপ সাদৃশ্য গ্রাম গুলোর সাথে সড়ক পথের কোন ব্যবস্থা।

তাই বছরের বর্ষার ৬মাস শিক্ষার্থীরা জীবনের যুকিঁ নিয়ে স্কুলে ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকা দিয়ে মেঘ,বৃষ্টি ও হাওরের বড় বড় ঢেউ উপেক্ষা করে যাতায়াত করছে প্রতিদিন। আর বাকী ৬মাস কাদাঁ যুক্ত মাঠ,ঘাট,ফসলী জমিনের আইল দিয়ে কোন রকম পায়ে হেটেঁ। ।

এই স্কুলে ১০টি গ্রামের ৩০০জন শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছে। বর্ষার সময় হাওরপাড়ের এই শিক্ষা প্রতিষ্টানের চারপাশে পানিতে থৈ থৈ করে। আর শিক্ষার্থীদের হাওর পাড়ি দিয়ে যাতায়াত করার জন্য সরকারী ভাবে নৌকা বা অন্য কোন যোগাযোগ মাধ্যম নেই। ঐসব শিক্ষার্থীদের মা,বাবার ও সামর্থ্য নেই নৌকা কিনে দেওয়ার। তার পরও অনেক মা,বাবা নিজেদের সন্তানদের শিক্ষা জীবনের কথা চিন্তা করে তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠিয়ে শিক্ষিত করার জন্য ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকা কিনে দেয়। আর শিক্ষার্থীরা নিজেরাই বইঠা হাতে নিয়ে নৌকা বেড়ে স্কুলে আসা যাওয়া করে।

আর যাদের অভিবাবকরা নৌকা কিনতে পারেন না তারা স্কুলে যেতেও পারে না। তাই হাওর পাড়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি থাকে কম। তাই বার বার শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে প্রধান শিক্ষক
মনোমোহন রায় তালুকদার বিদ্যালয়ের জন্য একটি বড় নৌকার দাবী জানিয়েছেন। এবং স্কুলে নেই প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র, নেই বিদ্যুত। কষ্ট করে লেখাপড়া করতে হয় শিক্ষার্থীদের।
সহকারী শিক্ষক জাহিদ হাসান পিন্টু বলেন,
হাওর পাড়ের ১০টি গ্রামের সকল ছাত্র-ছাত্রীরা বর্ষায় জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকা দিয়ে সকল প্রতিকুলতা পায়ের ঠেলে স্কুলে আসছে প্রতিদিন। নৌকার কারনে অনেকেই স্কুলে আসে না। একটি ভাল ও বড় নৌকা হলে শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তা ও হাওর পাড়ের শিক্ষার্থীদের মা,বাবা তাদের স্কুলে পাঠানো সন্তানদের নিয়ে সারাক্ষন উৎবেগ আর উৎকণ্ঠায় থাকতে হবে না। কিছুটা হলেও মনে সান্তনা ও সাহস থাকবে।
অভিভাবক গনবলেন বর্ষায় সময়ে সারাক্ষন আতংকের মধ্যে থাকি কখন জানি দূর্ঘটনার শিকার হয় আমাদের ছেলেমেয়েরা।
জানা যায় যে, ২০১১ সালে প্রয়াত দ্বীনেশ চন্দ্র তাং সাবেক চেয়ারম্যান দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়ন উনার নিজ অর্থায়নে হাওর পাড়ের শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে দ্বীজন্দ্র কুমার নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। তবে এখন পর্যন্ত এই বিদ্যালয়ের বেহাল অবস্থা দেখে স্থানীয় প্রতিনিধি মেম্বার চেয়ারম্যান গণ এগিয়ে আসেনি। খুব কম সংখ্যক ব্রেঞ্চ থাকায় শিক্ষার্থীদের দাড়িয়ে ক্লাস করতে হয়।। তাই প্রশাসনের নিকট এলাকাবাসীর আকুল আবেদন যত তারাতারি সম্ভব একটি বড় নৌকা এবং স্কুলের প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র দেওয়া হোক যাতে করে শিক্ষার্থীরা সুষ্টু ভাবে লেখাপড়া করতে পারে।