|
এই সংবাদটি পড়েছেন 70 জন

প্রথম দিনেই চমক দেখালেন পুলিশ সুপার

ডেইলি বিডি নিউজঃ আনুষ্ঠানিক দায়িত্বগ্রহন করে চমক দেখালেন সিলেটের নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম। গত ২৫ জুন প্রথম কার্যদিবসে জেলার সকল উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকে সিলেট জেলার আইন শৃংখলা স্বাভাবিক রাখতে পুলিশকে ‘জিরো টলারেন্স’ দেখানোর জন্য নির্দেশ প্রধান করেন।

বিশেষ করে প্রবাসী অধ্যুষিত সিলেট জেলায় চুরি ডাকাতি নির্মূলের জন্য চিহ্নিত ডাকাতদের বিরুদ্ধে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সকল থানার অফিসার ইনচার্জদের কে কঠোড় নির্দেশনা প্রদান করেন।পুলিশ সুপারের নির্দেশনা অনুযায়ী জেলার সকল থানা পুলিশ চিহ্নিত ডাকাত/সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান শুরু করে।

এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাতে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রীতিগন্জ বাজার অভিমুখে কুড়িখলা মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় ডাকাতদের গ্রেফতারে অভিযান চালায়।এসময় ডাকাত দল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে।ডাকাতদের প্রতিরোধ করার জন্য পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে।পাল্টা পাল্টি গোলা গুলিতে আন্ত:জেলা ডাকাত সর্দার আকুল মিয়া (২৮) গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মাটিতে পরে যায়।আহত অবস্থায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে । সে বিশ্বনাথ থানাধীন নওধাড় গ্রামের মৃত ইদ্রিছ আলীর ছেলে ।এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১ টি পাইপগান,২ রাউন্ড কার্তুজসহ ডাকাতি কাজে ব্যবহ্রত অন্যান্য মালামাল উদ্ধার করে।এই ঘটনায় এসআই দেবাশীষ শর্মা সহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।আহত পুলিশ সদস্য সহ ডাকাত সর্দার আকুল নিয়া পুলিশ প্রহরায় এমএজি ওসমানী হাসপাতালে চিকিত্সাধীন রয়েছে। ডাকাতি প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে আলাদা মামলা রুজুর প্রক্রিয়া চলছে। ডাকাত আকুলের বিরুদ্ধে সিলেট এবং সুনামগঞ্জ জেলায় মোট ৮ টি ডাকাতি মামলা রয়েছে।