|
এই সংবাদটি পড়েছেন 30 জন

‘তৃণমূলকে’ সংগঠিত করতে সিলেট আ.লীগের তোড়জোড়

ডেইলি বিডি নিউজঃ সিলেট আওয়ামী পরিবারকে ঢেলে সাজানোর প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। কেন্দ্রের নির্দেশে সম্মেলনের মাধ্যমে জেলা এবং মহানগর আওয়ামী লীগের আওতাধীণ সাংগঠনিক কমিটিগুলো গঠনের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। এতে করে দীর্ঘদিন পর আওয়ামী পরিবারে চাঙ্গাভাব বিরাজ করছে।

কেন্দ্রের নির্দেশনা প্রাপ্তির বিষয়টি সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতারা নিশ্চিত করলেও কবে নাগাদ মেয়াদোত্তীর্ণ এই দুটি সাংগঠনিক কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে-তা জানাতে পারেননি তাঁরা। যদিও বলেছেন, দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত ওই নির্দেশনা পত্রে জেলা ও মহানগরের আওতাধীন মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙ্গে দ্রুত সময়ে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের তাগিদ দেওয়া হয়েছে। এই পত্রে জেলা ও মহানগরে সম্মেলনের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। যদিও দলের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, কেন্দ্রের পাঠানো পত্রে জাতীয় সম্মেলনের আগে মেয়াদোত্তীর্ণ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন আয়োজনের নির্দেশনা রয়েছে।

এদিকে, দীর্ঘদিন পর জেলা এবং মহানগর এবং এর আওতাভূক্ত সাংগঠনিক ইউনিটগুলোর সম্মেলনের নির্দেশনার খবরে উল্লাসিত নেতাকর্মীরা। তাদের মাঝে চাঙ্গাভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। পাশাপাশি সম্মেলনে দল বান্ধব এবং ত্যাগী কর্মীদের নতুন করে মূল্যায়নের সুযোগ হবে বলে মনে করছেন তারা।

কেন্দ্রীয় নির্দেশনার বিষয়ে জানতে চাইলে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী মহানগরের সকল ওয়ার্ড কমিটি গঠনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে। দলের জাতীয় সম্মেলনের আগে নগরীর যে কয়টি ওয়ার্ডে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি দেওয়া সম্ভব তাই করা হবে।

কেন্দ্রের নির্দেশনাপত্র বুধবার হাতে পেলেও বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত তা খুলে দেখতে পারেননি বলে জানালেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিজাম উদ্দিন। তিনি বলেন, জেলা সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী যুক্তরাজ্যে যাওয়ার সময় তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী কবিরুল ইসলাম কবির কেন্দ্র প্রেরিত পত্রসহ কিছু কাগজপত্র তাঁর কাছে হস্তান্তর করেছেন। কিন্তু ব্যস্থতার কারণে সেগুলো পড়ার সুযোগ পাননি তিনি।

যে কারণে কেন্দ্রপ্রেরিত পত্রের কি নির্দেশনা রয়েছে-তা জানাতে পারেননি আওয়ামী লীগের এই ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক।

কেন্দ্রের পত্র প্রাপ্তির বিষয়টি স্বীকার করেছেন সিলেট মহানগর সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানও।

তিনি জানান, কেন্দ্র প্রেরিত পত্রে মহানগরীর ওয়ার্ড কমিটি গঠনের নির্দেশনা রয়েছে। তবে, দিনক্ষন বেঁেধে দেওয়া না হলেও জাতীয় সম্মেলনের আগে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে সম্মেলন সম্পন্ন করার কথা বলা হয়েছে। ওইপত্রে মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের কোনো নির্দেশনা নেই বলেও জানান তিনি।