|
এই সংবাদটি পড়েছেন 33 জন

তাহিরপুরে ৫০ গ্রাম প্লাবিত, অর্ধশত প্রাইমারি স্কুলে ঢুকেছে পানি

তাহিরপুর প্রতিনিধি ঃটানা বর্ষণে যাদুকাটায় আবারো পাহাড়ি ঢল নেমেছে। ঢলের পানিতে তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, অর্ধ শতাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয় ও গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। আকাশের অবস্থা এমন থাকলে দু’একদিনের মধ্যে বড় ধরনের বন্যার আশংকা করছেন তাহিরপুরবাসী।
গত জুন মাসের শেষ সপ্তাহে ২ দিনের ভারী বৃষ্টিপাতে পাহাড়ি নদী যাদুকাটায় ঢল নেমে উপজেলার ৫০ টির মত গ্রাম প্লাবিত হয়। সে সময় ঢলের পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়ক। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ে তাহিরপুর থেকে সুনামগঞ্জ জেলা সদরের সাথে। সে অবস্থা থেকে উত্তরণ হতে না হতে আবরো যাদুকাটায় পাহাড়ি ঢল নেমেছে।
গত ৪ দিনের টানা বৃষ্টিতে যাদুকাটা নদী দিয়ে নেমে আসা ঢলে প্লাবিত হয় নদীর তীরবর্তী বালিজুরী, আনোয়ারপুর, দক্ষিণকূল, মাহতাবপুর, সোহালা, পিরিজপুর, লোহাজুরী ছরারপাড়, ঘাঘরা, পাতারি চিকসা, পাতারগাঁও, রসুলপুর, গাজীপুর, টাকাটুকিয়া, বড়খলাসহ অর্ধ শতাধিক গ্রাম।
সেই সাথে ঢলের পানি ঢুকেছে বালিজুরী নয়া হাটি, মেঞ্জারগাঁও, বালিজুরী পশ্চিম পাড়া, বড়খলা, পাতারি, আনোয়ারপুর, দক্ষিণকূল, নয়াহাট, মাহতাবপুর, লক্ষ্মীপুর, গাজিপুর, পাতারগাঁও, সোনাপুর, পিরিজপুর সহ ৫০ টির মত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। বিদ্যালয় আঙ্গিনায় পানি প্রবেশ করায় বিদ্যালয় যেতে পারছে না শিক্ষার্থীরা।
অপরদিকে আনোয়ারপুর বাজারের পূর্ব পাশে তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়কে, আনোয়ারপুর ব্রীজের পূর্ব পাশে নির্মাণাধীন রাস্তার উপর দিয়ে, বালিজুরী গ্রামের সামনে দিয়ে এবং শক্তিয়ারখলা গ্রামের পূর্ব দিকে সড়কের উপর দিয়ে প্রবল বেগে পাহাড়ি ঢলের পানি প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে মঙ্গলবার ভোর থেকেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে তাহিরপুর । বর্তমানে সড়কে জেলা সদরের সাথে কোন প্রকার যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।
বালিজুরী ইউনিয়ন পরিষদ সচিব বিজিত মৈত্র বলেন, ‘যাদুকাটা নদীর দু তীর উপচে আনোয়ারপুর বাজারের মধ্য দিয়ে ঢলের পানি প্রবাহিত হচ্ছে।’
বালিজুরী নয়াহাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক এনামুল হক বলেন, ‘ঢলের পানি বিদ্যালয় ভবনের ভেতর প্রবেশ করছে। এ অবস্থা থাকলে বিদ্যালয় বন্ধ করা ছাড়া কোন উপায় নেই।’