|
এই সংবাদটি পড়েছেন 14 জন

বন্যা কবলিত ৬শত পরিবারের মধ্যে সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশের শুকনো খাবার বিতরণ

ডেইলি বিডি নিউজঃ সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ বন্যা কবলিত ৬’শ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সহায়তা হিসাবে শুকনো খাবার বিতরণ করেছে। জেলা পুলিশের মানবিক উদ্যোগে কয়েকদিনের টানা বর্ষণে পাহাড়ি ঢলে বন্যা কবলিত হাওরতীরবর্তী ও সীমান্ত জনপদের তাহিরপুরের গ্রামে গ্রামে শুক্রবার দিনব্যাপী শুকনো খাবার বিতরণ করেন পুলিশ সুপার।

উল্ল্যেখ উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা সাত দিনের প্রবল বৃষ্টিপাতের কারনে সীমান্ত নদী এবং পাহাড়িছড়া ভেদ করে ঢলের পানি ঢুকে বন্যা কবলিত হয়ে একের পর এক পানিবন্দি করে ফেলে উপজেলার উজান ও নিম্নাঞ্চলের গ্রামীণ জনপদ গুলোকে।

যে কারণে গ্রামীণ হাট বাজার গুলোতে গত চারদিন ধরে প্রায় ৩ থেকে ৪ ফুট সমপরিমাণ ঢলের পানি প্রবেশ করায় দোকান পাঠ বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা।

অন্যদিকে বিভিন্ন গ্রামীণ বসতিতে ঢলের পানি ঢুকে পড়ায় কোনো কোনো পরিবারে গত কয়েকদিন অবধি চুলো জ্বালানো সম্ভব হয়নি। ফলে বন্যা কবলিত পানিবন্দি পরিবারগুলোতে দেখা দেয় শুকনো খাবারের তীব্র সংকট।

এ অবস্থায় সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. বরকতুল্লাহ খান তাহিরপুরের টাঙ্গুয়ার হাওর তীরবর্তী জয়পুর, মন্দিয়াতা, গোলাবাড়ি, কামালপুর, ছিলানী তাহিরপুর, ইসলামপুর, জামালপুর, দুধের আাউডা, বালিয়াঘাট, সীমান্তবর্তী লাকমা, বড়ছড়া, ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্পে বন্যা কবলিত ৬০০’শতাধিক পরিবারের লোকজনের মধ্যে শুকনো খাবারের ব্যাগ তুলে দেন।, এসব শুকনো খাবারের মধ্যে রয়েছে, ২কেজি চাল, ২কেজি চিড়া, ১কেজি ডাল, ১কেজি গুড়, ১ লিটার সয়াবিন তৈল।

উপজেলার ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্পে বন্যাকবলিত সীমান্ত জনপদের হতদরিদ্র পরিবারের লোকজননের মধ্যে ত্রাণ সহায়তা বিতরণ কালে সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. বরকতুল্লাহ খান বন্যা কবলিত তাহিরপুর সহ গোটা জেলায় বন্যাকবলিত হতদরিদ্র পরিবারগুলোর পাশে সার্বিক সহযোগীতার জন্য সমাজের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, ব্যবসায়ী সংগঠন, দানশীল, বিক্তবান ব্যাক্তিবর্গ সহ সকল শ্রেণি পেশার লোকজনকে আহবান জানান।

ত্রাণ সহায়তা বিতরণকালে তাহিরপুর থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান, জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওসি কাজী মুক্তাদির হোসেন, ডিআইও-টু আব্দুল লতিফ, দৈনিক যুগান্তরের ষ্টাফ রিপোর্টার. দি বাংলাদেশ টুডে’র সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি হাবিব সরোয়ার আজাদ, সাংবাদিক রাজন চন্দ, আবুল কাসেম, বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. আমির উদ্দিন, ট্যাকেরঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই মো. কবির হোসেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গণ্যমাণ্য ব্যাক্তিবর্গ, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্ধ, গণমাধ্যকর্মীগণ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।