|
এই সংবাদটি পড়েছেন 93 জন

বন্দরবাজার ফাঁড়ির অবৈধ আয়ের হাতিয়ার লোকমান বেপরোয়া

ডেইলি বিডি নিউজঃ সিলেট নগরীর বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির নির্ধারিত লাইনম্যান লোকমান আহমদ। বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতেই তার বাসা-বাড়ি। ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই কামালের সকল দায়িত্ব সে একাই পালন করে যাচ্ছে। ফাঁড়িতে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের সাথে প্রায়ই দূর ব্যবহার করে তাকে সে। লোকমানই হচ্ছে এইআই কামালের অবৈধ আয়ের হাতিয়ার।

জানা গেছে, লোকমান ছিলো একজন হাকার। সম্প্রতি শ্রমিক নেতা রকিব হকার থেকে লাইন আউট হয়। এর পর থেকে লোকমান লাইনম্যান হিসাবে রকিবের দায়িত্ব পালন করছে। আর এই দায়িত্ব দিনের বেলা নগরীর কোতোয়ালী এলাকার সকল ধরনের ফুটপাত থেকে দৈনিক পঞ্চাশ হাজার টাকা করে আদায় লোকমান। এই টাকার হিসাব প্রতিদিন রাত বারটার পর এসআই কামাল নিজেই বুঝে নেন।
অন্যদিকে ফাঁড়ির ইনচার্জ কামালের সাপ্তাহিক বখরা বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও জুয়ার স্পট থেকে লোকমান নিজেই এই চাঁদা আদায় করে। সে বর্তমানে অবৈধ টাকার গরমে অঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে যাচ্ছে। রাত হলেই লোকমান মাতাল হয়ে রাস্তায় মাতলামি করতে দেখা যায়। বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও জুয়ার স্পট থেকে চাঁদা আদায় করতে নিয়ে যায় ফাঁড়ি পুলিশের মোটরবাইক।

বর্তমানে পুলিশ ফাঁড়ির মেস লোকমান নিজেই পরিচলানা করে থাকে।

বন্দরবাজারের ফুটপাতের এক ব্যাবসায়ী জানান, লোকমান প্রতিদিন এসে ৫০ টাকা করে নিয়ে যায়। কিন্তু একদিন টাকা কম দিলে সে কিছু না বলেই সাথে সাথে পুলিশ দিয়ে পুলিশ দিয়ে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আবার বড় অংকের টাকা দিয়ে ছাড় পেতে হয়। একমকি রাত হলেই মাদক পান করে হকারদের মারধর করে। লোকমান ও এসআই কামালের সকল অপকর্ম দিন দিন বেড়েই চলেছে। এদের অপকর্মে অতিষ্ঠ ব্যাবসায়ীরা প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছে।