|
এই সংবাদটি পড়েছেন 36 জন

সিলেট-আখাউড়া রেলপথে ঘন ঘন দুর্ঘটনার প্রতিবাদে কুলাউড়ায় মানববন্ধন

মৌলভিবাজার প্রতিনিধিঃ সিলেট-আখাউড়া রেলপথে ঘন ঘন দূর্ঘটনার কারণ উদঘাটন, দায়ীদের শাস্তি নিশ্চিতকরণ ও রেল লাইনের দ্রুত সংস্কারের দাবীতে সোমবার দুপুরে কুলাউড়া রেলওয়ে জংশনে মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজলের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম আতিকুর রহমান আখই এর সঞ্চালনায় একাত্মতা পোষণ করে বক্তব্য রাখেন জাসদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি এম গিয়াস উদ্দিন আহমদ, সাবেক চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আহমদ, ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মঈনুল ইসলাম শামীম, ভাটেরা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদ, জেলা সাংবাদিক ফোরামের সহ-সভাপতি এম. মছব্বির আলী, ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি রফিক মিয়া ফাতু ও আব্দুল ওয়াহিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত বাবলু, কোষাধ্যক্ষ বদরুল ইসলাম, রাইজিং স্টার ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল বারী সোহেল, মুক্ত স্কাউট গ্র“পের সভাপতি মোর্শেদ আলম, ব্যবসায়ী সমিতির ওয়ার্ড সদস্য এইচ ডি রুবেল, ইউনাইটেড রয়েল্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুক্তাদিরুল ইসলাম তুহিন, উপজেলা তালামীযের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন সাজু, ছাতপীর স্মৃতি পরিষদের সভাপতি আব্দুস শুকুর ছুরকুম প্রমুখ।

বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সিলেট-আখাউড়া রেলপথে একের পর এক দুর্ঘটনায় যাত্রীরা আতংকিত হয়ে পড়েছেন। রেলবিভাগের উদাসীনতা ও গাফিলতির কারণে এই দুর্ঘটনা বারবার ঘটছে। সরকারি চাকুরী করে রেল বিভাগের কর্মকর্তারা বেতন ভাতা ভোগ করছেন কিন্তুু রেললাইন সংস্কারে কোন কার্যত ভূমিকা নিচ্ছেন না। তাদের অবহেলার কারণে রেললাইন আজ মৃত্যুফাঁদে পরিণত হয়েছে। দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে এখনই কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা সবাই নিরাপদ ট্রেন যাত্রা চাই। মানুষ এখন ট্রেনযাত্রায় আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। এই অবস্থা থেকে আমরা পরিত্রাণ চাই। ব্রিটিশ আমলের এই রেললাইনের দীর্ঘদিন থেকে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। এটি স্থায়ীভাবে মেরামত করার কোন উদ্যোগ নেয়া হলেও কাজ বাস্তবায়নে কোন গৃহীত প্রদক্ষেপ পরিলক্ষিত হচ্ছে না। যারকারণে প্রতিনিয়ত ঘটছে একের পর এক দুর্ঘটনা। আর কত দুর্ঘটনা ঘটলে রেল বিভাগের টনক নড়বে। এই প্রশ্ন এতদ অঞ্চলের কয়েক লক্ষাধিক মানুষের। অতি দ্রুত সিলেট-আখাউড়া রেললাইন মেরামত, স্টেশনের টিকেট কালোবাজারি, যাত্রীদের টিকেট নিয়ে হুয়রানি, যাত্রীসেবার মান খুবই নিম্নমানের নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং এই সমস্যা নিরসনে রেল কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানান। অন্যতায় কুলাউড়াবাসীকে নিয়ে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।
কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির আয়োজনে মানববন্ধনে একাত্মতা পোষণ করেছে গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থা কুলাউড়া শাখা, আঞ্জুমানে তালামীযে ইসলামীয়া উপজেলা ও পৌর শাখা, রাইজিং স্টার ক্লাব, ইউনাইটেড রয়েল্স ক্লাব, কুলাউড়া মুক্ত স্কাউট গ্র“প, স্যোসাল কেয়ার অব নেশন, কুলাউড়া সমস্যা ও সম্ভাবনা গ্রুপ, কুলাউড়া পরিবহন শ্রমিক, হযরত ছাতাপীর (রহঃ) স্মৃতি পরিষদসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন।

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন কুলাউড়ার বরমচালে উপবন দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত ও শতাধিক আহত, ১৯ জুলাই দুপুরে কুলাউড়া স্টেশনের আউটার সিগন্যাল এলাকায় জয়ন্তিকা ট্রেন লাইনচ্যুত ও পরের দিন একই স্থানে কালনী ট্রেন সকালে লাইনচ্যুত হয়।