Tue. Mar 2nd, 2021

‘পার্টনারশিপে’ ফল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা : বিএনপি

ডেইলি বিডি নিউজঃ প্রতিপক্ষকে সরিয়ে দিয়ে সরকার ও নির্বাচন কমিশনের যৌথ প্রচেষ্ঠায় পৌর নির্বাচনের ফল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।

দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, সরকার ও নির্বাচন কমিশন পার্টনারশিপের ভিত্তিতে পৌরসভা নির্বাচনে মেয়রসহ কাউন্সিলর পদগুলো ছিনিয়ে নিতে চাচ্ছে। আওয়ামী সরকারের গেম থিওরির একটাই উদ্দেশ্য হচ্ছে, মাঠে প্রতিপক্ষ না রাখা।’

রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শনিবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন তিনি।

রিজভী বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে সরকারের অশুভ তেজারতি জনগণের বুঝতে বাকি নেই। সরকার জনগণের শক্তিতে বিশ্বাস করে না, সেজন্য জবাবদিতিতার প্রয়োজন মনে করে না বলেই এত অভিযোগ, এত অনিয়ম, এত সন্ত্রাস এবং বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নির্বিচারে গ্রেফতার করতে দ্বিধা করছে না।’

সরকার ‘নির্লজ্জ হয়ে পড়েছে’ বলেই জনগণের সমালোচনাকে অগ্রাহ্য করে নির্বাচনী ফলাফলকে আত্মসাৎ করতে উঠেপড়ে লেগেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপির দফতরের দায়িত্বে থাকা এই যুগ্ম মহাসচিব বলেন, যতই ‘ডিক্টেটরিয়াল কন্ট্রোল’ মানুষের ওপর আরোপ করা হোক না কেন, জনগণ অবশ্যই গণতন্ত্রকে উদ্ধার করবে। সকল রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করেই সাধারণ ভোটাররা নির্বাচনের দিনে ভোট দেবে।

ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীসহ শাসকদল বিরোধী দলকে গালাগালি করা, নির্মূল করার হুমকি দেওয়া যেন একটি ফ্যাশন। বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীকে কষে গাল দিতে না পারলে যেন প্রধানমন্ত্রীর ঘুম হারাম হয়ে যায়। গালাগালি ও সহিংস সন্ত্রাসের অভিনব আবিস্কারক তিনি।’

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক সফিউল আলম লিলন হত্যায় রাজশাহী জেলা যুবদলের আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন উজ্জলসহ বিএনপি ও যুবদলের ১১ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে চার্জশিট দেওয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান রিজভী। তিনি অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা ও চার্জশিট প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বিএনপির এই নেতা অভিযোগ করেন, ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া, কুমিল্লা, নাটের, ভোলা, ফরিদপুর নারায়ণগঞ্জ, জয়পুরহাট, চট্টগ্রাম, নাটের, ময়মনসিংহ, ঝালকাঠি, বরগুনা, নোয়াখালীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় শাসকদলের লোকেরা বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে হামলা এবং মিথ্যা মামলায় তাদের গ্রেফতার করছে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা।

নেতাকর্মীদের মারধর, নির্বাচনী প্রচার ছিঁড়ে ফেলা, প্রচারে বাধা দেওয়া এবং প্রার্থীদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।