|
এই সংবাদটি পড়েছেন 28 জন

কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ায় তফজ্জুল হোসেন সম্বর্ধিত

ডেইলি বিডি নিউজঃ সাসেক্স বিএনপির সভাপতি আলহাজ তফজ্জুল হোসেন কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ায় সাসেক্স বিএনপির উদ্যোগে এক সম্বর্ধনার আয়োজন করা হয় ।

সাসেক্স বিএনপির সহ সভাপতি আব্দুল মানিক মিয়ার সভাপতিত্বে, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শামীম আহমেদ এর পরিচালনায়, আলাউদ্দিন খানের কোরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া সম্বর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক, প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদ,সংবর্ধিত অতিথি আলহাজ তফজ্জুল হোসেন কাউন্সিলর, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুজাতুর রাজা, হাজী রফিক মিয়া।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আব্দুল আহাদ, মিলিক চৌধুরী, আতর আলী, হাবিবুর রহমান হাবিব, আমিনুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান লুত্ফুর,তাহের উদ্দিন আজিজ ও সুহেবুর রহমান ।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টা জামাল আহমেদ, মঈন উল্লাহ, মোতাহার হোসেন, সফিকুল ইসলাম, জাকারিয়া আহমেদ, মিলাদ চৌধুরী, আঃ জলিল, আবুল খায়ের, আঃ আলীম হান্নান, সৈয়দ তাজুদ মিয়া, আফরোজ মিয়া, আঃ মুহিত, মারুফ পাঠান,নানু মিয়া, ফজলুর রহমান, শাহ্ রহমান, তারেক আহমেদ, সাইফুল আলম, বখতিয়ার খাঁন, আবু তাইব আহমেদ, নাসির মিয়া ও কামরুল আলম প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, আজকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন মিথ্যা মামলা দিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে। বিশ্বের যেখানে গণতন্ত্র আছে সেখানে মানুষ হয়রানি নিপীড়ন হয়না। আজকে লাখো মানুষের জীবন ও মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন দেশে আমরা অধিকার বঞ্চিত। আসলে ক্ষমতাসীনেরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়। এজন্য জনগণের কাছে তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই। তারা পুলিশ ও প্রশাসনকে ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়।

বক্তারা বলেন, আজকে দেশের স্বাধীনতার মহান ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্ত্রী ও বাংলাদেশের সাবেক চারবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রাখা হয়েছে। যিনি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে আপোসহীন। আজ কারাগারে তাকে সুচিকিৎসা দেয়া হয়না। তিনি তো কোনো টাকা তছরুপ করেননি। আদালত প্রমাণ করতে পারেনি। অথচ দেশে আইন করে তছরুপকারীদের মওকুফ করা হয়েছে।

আমরা খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি চাই খালেদা জিয়ার মুক্তি তার প্রাপ্য। রাজনৈতিক কারণে আইনি কারণে তার মুক্তি দাবি করি।

তফজ্জুল হোসেন কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ায় নেতৃবৃন্দ তাকে অভিনন্দন জানান । কমিউনিটির উপকারে যেন কাজ করে যান এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ত রক্ষা ও গনতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে যেন উনি বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন।