|
এই সংবাদটি পড়েছেন 30 জন

সিটি করপোরেশনকে টাকা না দেয়ায় হাইকোর্টে রীটকারীদের টমটম বন্ধ

ডেইলি বিডি নিউজঃ হাইকোর্টে রীটের আদেশে দীর্ঘদিন থেকে সিটি করপোরেশনের দক্ষিণ সুরমা এলাকায় ইজিবাইক (টমটম) চলাচল করলেও বর্তমানে বন্ধ রয়েছে।

চলাচলের জন্য সিটি করপোরেশন রীটকারীদের কাছে ১ লক্ষ টাকা দাবি করছে বলে অভিযোগ উঠছে। বুধবার (৭ আগস্ট) সকালে দক্ষিণ সুরমার মার্কাজ পয়েন্টে ২৫, ২৬ ও ২৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা, হাইকোর্টে রীটকারীরা টমটম চালকরা মানববন্ধন করেন।

জামান উদ্দিনের পরিচালনায় ও রমজান মিয়ার সভাপতিত্বে বক্তারা বলেন, আমরা দক্ষিণ সুরমার ২৫ , ২৬ ও ২৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা এবং মহামান্য হাইকোর্টে বৈধ রীটকারী টমটম চালকবৃন্দ।

গত ৯ জুলাই দুপুর ১২টায় হঠাৎ করে সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ক্বিনব্রিজের দক্ষিণ পার্শ্বে আসেন এবং উচ্চ আদালতের স্বীকৃত টমটম কিভাবে চলছে তা তিনি জানতে চান। তাৎক্ষনিক কিছু টমটমের ড্রাইভার তাকে অবহিত করেন টমটমগুলি হাইকোর্টের আদেশে চলাচল করছে। তখন তিনি তার মােবাইল ফোনে ট্রাফিকের উপ-পুলিশ কমিশনার ফয়সল মাহমুদকে টমটম আটক করার নির্দেশ দেন। তখন আমাদের কিছু ড্রাইভার মেয়রকে অনুরােধ করেন টমটম বন্ধ না করতে এবং মহামান্য হাইকোর্টের প্রতি সম্মান জানিয়ে গরীব মানুষদের বেঁচে থাকার শেষ সম্বল রক্ষায় এগিয়ে আসতে অনুরোধ জানান। তার অফিসে গিয়ে কথা বলতে বলে তিনি চলে যান।

এদিকে নির্দেশ পেয়ে ট্রাফিকপুলিশ টমটম আটক করা শুরু করে পুলিশ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রুটি রোজগারের একমাত্র অবলম্ব টমটম বন্ধ থাকায় আমরা অসহায় হয়ে পরি। কিছুদিন পর মেয়রের ফোন থেকে অফিসে যেতে বললে আমরা অফিসে যাই। অফিসে যাওয়ার পরে অকথ্য ভাষায় আমাদের কে গালিগালাজ করেন এবং আমাদের বলেন আমাদের গাড়ী চালাতে হলে ক্বিনব্রীজের দক্ষিণ পার্শের পার্কিং ব্যবহার করে ১ লক্ষ টাকা দিতে হবে। পর দিন আমরা কয়েকজন উপ-পুলিশ কমিশনার ফয়সল মাহমুদের সাথে যোগাযোগ করি। তিনি আমাদের বলেন, মহামান্য হাইকোর্টের প্রতি সম্মান জানিয়ে আপনাদের টমটম চলাচলে অামাদের প্রসাশনের কোন আপত্তি নাই। এমন আশ্বাসে চালকরা টমটম নিয়ে রাস্তায় বের হলে ঝালোপাড়া এলাকায় সিটি করপোরেশনের লোক দাবি করে অশালীন ভাষায় কথা বলে টাকা না দিয়ে টমটম রাস্তায় চলাচল করা যাবেনা। এসময় তাদের একজন মেয়রকে টমটম চলাচলের কথা জনিয়ে দেয়। তার পাঁচ মিনিট পর ট্রাফিক ডিসির নির্দেশে টমটম আটকে নির্দেশ আসে।

তারা আরও বলেন, ২৫ দিন যাবৎ আমাদের গাড়ী বন্ধ থাকায় অর্ধাহারে, অনাহার কয়েকশত মানুষের দিন কাটছে। অথচ গত কয়েকদিন থেকে রাসেল নামের এক যুবকের মাধ্যমে দক্ষিণ সুরমার তিনটি ওয়ার্ডে টমটম চলাচল করলেও রহস্যজনক কারনে তাদের গাড়ি আটক করা হচ্ছেনা।

হাইকোর্টের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন পালন করি। অবৈধ চলাচলকারী টমটম বন্ধ রাখা ও আমাদের টমটম চলাচলের অনুমতি না দিলে আগামীতে কঠোর কর্মসূচী দেয়ার কথা বলে কর্তৃপক্ষ তাদের প্রতি সু দৃষ্টি দেবার দাবি জানান তারা।