Wed. Jan 29th, 2020

ফিরে দেখা সরকারের এক বছর

ডেইলি বিডি নিউজঃ আজ ৭ জানুয়ারি। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের প্রথম বর্ষ। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিন-চতুর্থাংশ আসনে বিজয়ী হওয়ার পর ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি সরকার গঠন করে।

গত ১০ বছরের ধারাবাহিকতায় এগিয়ে চলছে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি। বাংলাদেশের আজ সব সূচকে অগ্রগতি। মেগা প্রকল্পগুলোর কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। তবে গত এক বছরে বিভিন্ন কাজে সরকারের যেমন সাফল্য আছে তেমনি কিছু ঘটনা সরকারকে বিব্রতও করেছে।

সরকারের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সরকারের প্রথম বছর সাফল্যসহ গত ১১ বছরে দেশকে বদলে দেয়ার চিত্র এবং আগামী চার বছরে দেশকে আরও এগিয়ে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণের পরিকল্পনার কথা দেশবাসীর সামনে তুলে ধরবেন।

গত এক বছরে পূর্বে গ্রহণ করা সরকারের ১০ মেগা প্রকল্পগুলোর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে নেয়া হয়েছে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে- পদ্মা বহুমুখী সেতু, মেট্রোরেল, পায়রা সমুদ্রবন্দর, সোনাদিয়া গভীর সমুদ্রবন্দর, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র, মৈত্রী সুপার থার্মাল বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং এলএনজি টার্মিনাল পদ্মা রেলসেতু সংযোগ ও কক্সবাজার-দোহাজারী-গুনদুম রেলপথ প্রকল্প।

দুর্নীতি সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের কালো তকমা মুছে ফেলে সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুর্নীতি সন্ত্রাস ও জঙ্গিবিরোধী ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি শুধু দেশেই নয়, সারাবিশ্বেও প্রশংসায় পঞ্চমুখ। বিশেষ করে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান এবং নিজ ঘর থেকে শুদ্ধি অভিযানের সাহসী পদক্ষেপ বঙ্গবন্ধুর কন্যার প্রতি দেশের মানুষের আস্থা-বিশ্বাসকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।

টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা বর্তমান সরকারের সাফল্যের মধ্যে কৃষি ও শিক্ষা ক্ষেত্রে রীতিমতো বিপ্লব ঘটেছে। সর্বজনীন শিক্ষানীতি প্রণয়ন, প্রথম থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে বছরের শুরুতেই বিনামূল্যে বই বিতরণ, প্রাথমিক ও জুনিয়র সমাপনী পরীক্ষার প্রবর্তন, দীর্ঘদিন পর শিল্পনীতি প্রণয়ন, সন্ত্রাস-ধর্মীয় জঙ্গিবাদ দমন, আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল এবং কৃষিতে রীতিমতো বিপ্লবের সূচনা সরকারের বড় দাগের সাফল্য হিসেবেই দেখা হচ্ছে।

বর্তমান সরকার নিজস্ব অর্থায়নে নির্মাণ করছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু। যার ৬৫ থেকে ৭০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে, প্রায় তিন কিলোমিটার পদ্মাসেতু এখন দৃশ্যমান। রাজধানীর যানজট কমাতে মেট্টোরেলের কাজও অধিকাংশ প্রায় সম্পন্ন। দারিদ্র্যের হার বর্তমান সরকার মাত্র এক দশকেই ২০ ভাগে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। গোটা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেশের প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ১৫ ভাগে দাঁড়িয়েছে।

রেকর্ড সংখ্যক রিজার্ভ আর মাথাপিছু আয় আতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে প্রায় ২ হাজার মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। বিচার বিভাগে নুসরাত হত্যা মামলাসহ চাঞ্চল্যকর কয়েকটি হত্যা মামলার দ্রুত রায় জনগণকে খুশি করেছে।

এছাড়া অর্থনৈতিক উন্নয়ন, মানব সম্পদের উন্নয়ন, সামাজিক উন্নয়ন, বৈশ্বিক উন্নয়নের লক্ষমাত্রা অর্জন, সারাদেশে সড়ক অবকাঠামোর উন্নয়ন, কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা, জলবায়ু, পরিবেশের উন্নয়ন ও দুর্যোগ মেকাবিলা, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন, বিদ্যুতের উৎপাদন প্রায় ২৪ হাজার মেগাওয়াট, স্বাস্থ্যখাতে গুরুত্বপূর্ণ সাফল্যের প্রশংসা করছেন বিশ্লেষকরা।