Sun. Jan 26th, 2020

ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকো পারাপারে স্কুল শিক্ষার্থীরা

ডেইলি বিডি নিউজঃ লক্ষ্ণীপুরের রায়পুর উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের দক্ষিণ চরলক্ষ্ণী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষকে বাঁশের ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকোতে পারাপার করতে হচ্ছে। সাঁকো পার হওয়ার সময় ভয়ে থাকে সবাই। পা পিছলে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা। সাঁতার না জানা শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে অভিভাবক ও শিক্ষকরা আশঙ্কায় থাকেন। একটি ব্রিজের অভাবে এমনই দুর্দশায় স্থানীয় মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রায়পুর উপজেলার ৮ নম্বর দক্ষিণ চরবংশীর দক্ষিণ চরলক্ষ্ণীগ্রামে ১৯৯১ সালে প্রায় ৫০ শতাংশ জমিতে প্রতিষ্ঠিত হয় দক্ষিণ চরলক্ষ্ণী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এ বিদ্যালয়ে এখন দুই শতাধিক শিক্ষার্থী পড়াশোনা করে। গত ৫ জানুয়ারি ছুটির পর বাড়ি ফেরার পথে পা পিছলে সাঁকো থেকে পানিতে পড়ে যান স্কুলের দুজন শিক্ষক। এর মধ্যে একজন সাঁতার না জানায় পাড়ে উঠতে পারছিলেন না। তার চিৎকারে স্থানীয়রা এসে উদ্ধার করেন। স্কুলের শিক্ষার্থীরাও এভাবেই বিভিন্ন সময় পানিতে পড়ে যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্কুলসংলগ্ন সিআইপি খালটিতে ব্রিজ নির্মাণের জন্য দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয়ভাবে প্রচেষ্টা চালানো হয়েছে। ব্রিজ নির্মাণের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতরে আবেদনও করা হয়েছে। জবাবে আশ্বাস মিললেও ব্রিজ নির্মাণের পদক্ষেপ দৃশ্যমান হয়নি। এমনকি বাঁশের সাঁকোটিও মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ আবু বকর ছিদ্দিক বলেন, এ সাঁকো ও কাঁচা রাস্তাই এখন স্কুলের জন্য বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাঁকো পারাপার ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় শিক্ষার্থীদের নিয়ে সব সময় সবার মধ্যে আশঙ্কা কাজ করে। বিভিন্ন দফতর ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে অনেক আবেদন করেও আশ্বাসের বাস্তবায়ন না পাওয়ায় আমরা হতাশ।

রায়পুর উপজেলা শিক্ষা অফিসার কে এম মোস্তাক আহমেদ বলেন, বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে আমিও এ চিত্রটি দেখেছি। উপজেলা চেয়ারম্যানের সঙ্গে ব্রিজের বিষয়ে কথা হয়েছে। আশা করি শিগগিরই একটি রেজাল্ট দেখতে পাবো।

সৌজন্যে : বিডি প্রতিদিন