Wed. Apr 1st, 2020

দলে এখন কর্মী নেই, সবাই নেতা : কাদের

ডেইলি বিডি নিউজঃ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দলে কর্মী কমে যাচ্ছে, নেতা বেড়ে যাচ্ছে। তিনি সাম্প্রদায়িক অপশক্তি চক্রান্ত করে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করছে বলে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। রোববার দুপুরে রাজশাহী নগরীর মাদ্রাসা মাঠে মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের।
সম্মেলনে আবারও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে সভাপতি ও ডাবলু সরকারকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা দিয়ে ওবায়দুল কাদের আগামী তিন মাসের মধ্যে তাদের পূর্ণাঙ্গ মহানগর কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন।

প্রায় ৫ বছর পর রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন উদ্বোধন করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের সামনে এক কঠিন চ্যালেঞ্জ আসছে। বাংলার বাতাসে আবারও ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের গন্ধ। সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে যাচ্ছে। অশুভ এ শক্তি আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে চক্রান্তের পথে সরকার হটানোর ষড়যন্ত্র করছে। অশুভ এই শক্তিকে প্রতিহত করতে হবে। বাংলাদেশে আর যেন কোনোদিন সাম্প্রদায়িক শক্তি, অন্ধকারের শক্তি ক্ষমতায় না আসতে পারে, সেজন্য আওয়ামী লীগকে আজ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেনÑ দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল ও আবু সাইদ আল মাহমুদ স্বপন, নির্বাহী সদস্য নুরুল ইসলাম ঠাণ্ডু, বেগম আখতার জাহান প্রমুখ।

দলে কর্মী কমে যাচ্ছে, নেতা বেড়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগে সাচ্চা কর্মী দরকার। সুবিধাভোগীদের আওয়ামী লীগে দরকার নেই উল্লেখ করে কমিটিতে দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করার কথা বলেন তিনি। তিনি দুর্নীতি, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মাদকাসক্তিকে না বলার আহ্বান জানিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বলেন, যদি আদর্শের অনুসারী হন, তা হলে সেবার আদর্শ নিয়ে এগিয়ে যাবেন। মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য হতে হবে। মুজিব আদর্শে আমাদের শপথ হবে আমরা ত্যাগের মহিমা, ভোগের লিপ্সা পরিহার করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলা গড়ে তুলব। আজকে মুজিব জন্মশতবার্ষিকীতে আমাদের শপথ হবে, আমরা আওয়ামী লীগে কোনো সুবিধাবাদী, দুর্নীতিবাজ ও সন্ত্রাসীকে জায়গা দেব না।

নিজেদের পক্ষ ভারি করতে দলে সিন্ডিকেট গড়ে তুলে বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগকে ছোট না করতে নেতাদের সতর্ক করে দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, দলের মধ্যে নিজস্ব সিন্ডিকেট সৃষ্টি করতে পারবেন না। ঘরের মধ্যে ঘর করা যাবে না। মশারির মধ্যে মশারি খাটানো যাবে না। দুঃসময়ের ত্যাগী কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে। আওয়ামী লীগে ভালো লোকের অভাব নেই। খারাপ লোক দলে টানবেন না। কমিটি করতে গিয়ে পকেট কমিটি করবেন না। পকেট কমিটি করে বঙ্গবন্ধুকে, শেখ হাসিনাকে এবং আওয়ামী লীগকে ছোট করবেন না। সুবিধাবাদীদের আওয়ামী লীগে জায়গা নেই। সুবিধাবাদীরা সুসময়ে আছে, দুঃসময় এলে এরা পালিয়ে যাবে। আজকে ত্যাগী, পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের দিয়ে আওয়ামী লীগকে নতুন করে ঢেলে সাজাতে হবে। আমাদের এত নেতার দরকার নেই। আমাদের আজকে সাচ্চা কর্মী দরকার।