Wed. Jul 8th, 2020

অভিনব কায়দায় শিশু অপহরণঃ অপহরণকারীকে করেছে নেত্রকোনা জেলা গোয়েন্দা

ডেইলি বিডি নিউজঃ অভিনব কায়দায় শিশু অপহরণ করে টাকা দাবি ও জীবননাশের হুমকি প্রদান করা অপহরণকারীকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা নেত্রকোণা।

শিশুদের মাদ্রাসায় বাবুর্চির কাজ করার সুবাদে শিশুদেরকে সহজে বশে আনার মনস্তত্ত্ব বিষয় সার্বিক ধারণা আছে এই অপহরণকারীর। শহরের মালনী রোড থেকে ১০/১১ বছরের ২ শিশুকে গেম খেলায় প্রলুব্ধ করে আকৃষ্ট করে ঐ অপহরণকারী। পরের দিন (গত ১৮ জুন) হোটেলে খাইয়ে ও ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ময়মনসিংহে নিয়ে যায় এবং তাদের কাছে পরিবারের ফোন নাম্বার নিয়ে ৫০,০০০/= টাকা দাবী করে অন্যথায় জীবননাশ করবে বলে হুমকি দেয়। থানা পুলিশের কাছে গেলে তাদের ছেলেদেরকে ফেরত পাবে না বলেও হুমকি দেয়। পরিবারের লোকদের আর্থিক সচ্ছলতার দিকে খেয়াল রেখে সে টাকা দাবি করে যাতে সে ঐ টাকা সহজে পেয়ে যায়। পরবর্তীতে ঐ দুই পরিবারের নিকট সে ১১,০০০/= টাকা আদায় করে পরিবারের লোকদেরকে বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষা করতে বলে দুই ছেলেকে নেত্রকোণায় আসার বাসে উঠিয়ে দেয়। পরে জানা যায় ঐ দুই শিশুকে অপহরণকারী ময়মনসিংহ পার্ক ও নদীর পাড় দিয়ে ঘুরিয়েছে।

এই অপহরণকারী গত ২৪ জুন কুরপাড় এলাকা থেকে ১২ বছর বয়স্ক এক মাদ্রাসা পড়ুয়া শিশুকে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় অপহরণ করে ময়মনসিংহ নিয়ে ২য় আরেকটি ঘটনা ঘটিয়েছে নেত্রকোণায়। এই শিশুর পরিবারের আর্থিক অবস্থার দিকে তার আগে থেকেই নজর ছিল। সহজ সরল এই শিশুকেও অপহরণকারী মোবাইলে গেম খেলতে দিয়ে প্রলুব্ধ করে এবং একদিন পর তাকে পার্কে ঘুরতে নিয়ে যাবে বলে লোভ দেখায়। শিশুর কাছে তার ভাইয়ের মোবাইল নাম্বার নেয় এবং একটি দোকান ভাড়া নিবে বলে শিশুটির ভাইকে ফোন করে নিজেকে তার পরিচিত বলে দাবী করে এবং জানায় যে সে একটি কোম্পানিতে চাকরি করতো এবং এখন সে ব্যবসা করতে চায়। উল্লেখ্য, এই শিশুর বাবার কুরপাড় ও বনুয়াপাড়া এলাকায় কয়েকটি দোকান রয়েছে। পরের দিন শিশুটির ভাই তাকে দেখা করতে বলেছিল। কিন্তু সকাল ৯ টার দিকে ওই নাম্বার থেকে ফোন দিয়ে অপহরণকারী বলে যে তার ভাই এখন তার কাছে বন্দী, ময়মনসিংহে আছে, ২ লাখ টাকা দিলে ছেড়ে দেবে অন্যথায় তার জীবননাশ করে ফেলবে। শিশুটির অবস্থান তার সাথে নিশ্চিত করতে সে নাটকীয় কায়দায় শিশুর হাতে মোবাইল দিয়ে কথা বলা শুরু করতেই মোবাইল কেড়ে নেয়। থানা পুলিশের কাছে গেলে ভাইকে কোনভাবেই তারা ফেরত পাবে না বলে হুমকি দেয়। পরবর্তীতে ৯,০০০/= টাকার বিনিময়ে শিশুটিকে সে ছেড়ে দেয় এবং ময়মনসিংহ থেকে নেত্রকোণায় আসার বাসে উঠিয়ে দেয়। শিশুটি বিকেল সাড়ে চারটার দিকে তার মায়ের কোলে ফিরে আসে। পরে জানা যায় যে এই শিশুটিকেও অপহরণকারী শহরের নানা জায়গায় ঘুরিয়েছি এবং মোবাইলে গেম খেলতে ও গান শুনতে সুযোগ দেয়।

পুলিশ সুপার, নেত্রকোণার নির্দেশে ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে গোয়েন্দা শাখার এক চৌকস টিম ময়মনসিংহের গুদারা ঘাট এলাকা থেকে অপহরণকারী আব্দুল্লাহ খান@রনিকে গ্রেফতারপূর্বক মামলা রুজু করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করলে অপহরণকারী সিআরপিসি ১৬৪ ধারা মোতাবেক ঘৃণ্য ঘটনাসমূহের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

প্রিয় নেত্রকোণাবাসী, নিজে সচেতন হোন, আপনার শিশু সন্তানকে সচেতন করুন এবং আপনার শিশুকে নিরাপদে রাখুন।