Sat. Sep 19th, 2020

সালুটিকর গোয়াইনঘাট রাস্তার বেহাল দশা দায় নেবে কে?

নিবা নিশি :: পাথরবাহী যন্ত্র দানব ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে শত শত কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিতব্য সালুটিকর গোয়াইনঘাট রাস্তাটি বিভিন্ন স্থানে গর্ত ও খানা খানাখন্দকের সৃষ্টি হয়ে যান চলাচল মারাত্নক ভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে।ফলে এ রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী হাজার হাজার যাত্রীদের চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

১৯৯৪-১৯৯৫ সালে তৎকালীন বিএনপি সরকারের শাসনামলে উক্ত রাস্তার অার.সি.সি ঢালাই এর কাজ অারম্ভ হলেও ১৯৯৬-১৯৯৭ সালে অাওয়ামীলীগ সরকারের শাসনামলে রাস্তাটির কাজ সমাপ্ত হয়।

উপজেলার বৃহৎ অংশের জনগণ ঐ রাস্তা দিয়ে উপজেলা ও জেলা সদরের সাথে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন।রাস্তাটি নির্মাণ হওয়ায় যোগাযোগ ক্ষেত্রে এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে উপজেলার জনগণের মধ্যে।তাছাড়া জীবনযাত্রার মানও পরিবর্তন হতে থাকে ক্রমশই।

বর্তমান সরকারের অামল বারংবার রাস্তাটি সংস্কার করা হলেও বর্তমানে বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারী হতে পাথরবাহী ট্রাক অতিরিক্ত পাথর নিয়ে প্রতিদিন চলাচলের কারণে রাস্তাটি বিভিন্ন অংশে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।খানা খন্দকের কারণে যাত্রীবাহী লেগুনা,সিএনজি চালকরা ভাঙ্গা রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া অাদয় করে যাচ্ছেন।

সম্প্রতি বন্যার মধ্যে পাথর বাহী যন্ত্রদানব ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে সালুটিকরের সন্নিকটে দামারী নামক স্থানে ও তোয়াকুল ইউনিয়নের পেকেরখালের সম্মুখ রাস্তায় অবস্থা অত্যন্ত সূচনীয় করে ফেলেছে।প্রায়ই সড়ক দুর্ঘটনা ও যানজটের কবলে পড়তে হচ্ছে ভুক্তভোগী যাত্রীদের।এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি যানান অভার লোডে পাথর বাহী ট্রাকের জন্য রাস্তার ঐ অবস্থা হয়েছে।নির্বাহী প্রকৌশলী সিলেট এর সাথে যোগাযোগ করে শিঘ্রই সংস্কারের ব্যাবস্থা করা হবে।

অতিরিক্ত পাথর বাহী ট্রাকের চলাচলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা না হলে চলতি বৎসর-ই রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ার অাশংকা রয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু দৃষ্টি কামনা করছি।