Sat. Oct 24th, 2020

চরম ঝুঁকিতে রয়েছে বিদ্যুতের খুঁটি- ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ ১ নং সদর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের শুক্রীবাড়ি গ্রামে চরম ঝুঁকিতে রয়েছে বিদ্যুতের খুঁটি। স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে বার বার আবগত করলেও তারা কোন ব্যাবস্থা নেয়নি। এ অবস্থায় এতে যেকোনো সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা স্থানীয়দের।

জানা যায়, সদর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের শুক্রীবাড়ি গ্রামে বিলাল মিয়ার বাড়ির সম্মুখে এই খুঁটিটি অনেক পুরেনো হওয়ায় খুঁটির নিচের অংশ ক্ষয় হয়ে গেছে। কিছু অংশ লেগে রয়েছে তাও আবার মরিচীকা ধরেছে। এতে যেকোনো সময় খুঁটিটি ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এলাকাবাসী জানান- কিছুদিন পরপরই খুঁটির তারে আগুন ধরে যায়। তখন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে খবর দিলে তারা এসে আগুন নিভিয়ে যান। খুঁটির বেহাল দশার দৃশ্য তারা দেখে গেছেন কয়েকবার। এছাড়া স্থানীয়রা তাদেরকে ঝুঁকিপূর্ণ খুঁটির বিষয়ে অবগত করলেও খুঁটি পরিবর্তনের ব্যপারে তারা একেবারেই নিশ্চুপ। এতে সময়ে সময়ে খুঁটির অবস্থা আরো দুর্বল হয়ে পড়ছে। বড় ধরনের ঝড়-বাতাস হলে যেকোনো সময় ভেঙে পড়ে যেতে পারে বিদ্যুতের খু্ঁটিটি। ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা আঙ্গুর মিয়া (৬০) বলেন- প্রায় ৩ মাস যাবত পিলারের এই অবস্থা। স্থানীয় সাব জোনাল অফিসে কইছি তিনি বলেন এটার তেমন কোনো অসুবিধা হবে না। কিন্তু দিন দিন পিলারের ক্ষয় হচ্ছে। যেকোনো সময় ঘটবে দুর্ঘটনা। তাড়াতাড়ি যেন পিলারটি বদলানো হয় এর জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানান।

খুঁটির খারাপ অবস্থার বিষয়ে একই গ্রামের কবির মিয়া (৩০) বলেন, এই খুঁটির উপর দিয়ে নদীর অপর পাড় থেকে গ্রামের ঘরগুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি খুঁটিটি নিচু হওয়ায় ঘরগুলোতে তার লেগে যায়। অনেক আগে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ খুঁটিটি দেখে গেলেও কোন পদক্ষেপ নেয়নি তারা। খুঁটির নিচের অংশ শূন্যে পরিণত হচ্ছে। শীঘ্রই পদক্ষেপ না নিলে খুঁটিটি পড়ে এলাকায় বড় ধরনের দুর্ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে।

এ বিষয়ে সাব জোনাল অফিসের সহকারী প্রকৌশলী সায়েদ্দুজ্জামান বলেন- আমরা সবগুলো পরিদর্শন করে নোট পাঠিয়েছি। করোনা পরিস্থিতিতে ঠিকাদার কাজ না করায় বিলম্ব হচ্ছে। তবে অচিরেই আমরা এগুলো মেরামত করবো।