Fri. Sep 18th, 2020

উপনির্বাচনে ত্যাগীদের মনোনয়ন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

ডেইলি বিডি নিউজঃ ৫ টি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে ৩টিতে দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এই ৩টি আসনেই প্রয়াত এমপিদের পরিবারের কেউ মনোনয়ন পাননি। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিয়েছেন দলের ত্যাগী নেতাদের।

পাবনা-৪ আসনের ৫ বারের এমপি এবং সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে, জামাতাসহ পরিবারের মোট আটজন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন।মনোনয়ন পেয়েছেন ঈশ্বরদী উপজেলা চেয়ারম্যন নুরুজ্জামান বিশ্বাস।

ঢাকা-৫ আসনের চার বারের এমপি প্রয়াত হাবীবুর রহমান মোল্লার ছেলে জাহিদুল ইসলাম মোল্লা সজল মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী মনিরুল ইসলাম মনু।

নওগাঁ-৬ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন রাণীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল। এই আসনে পরপর তিন বার এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন প্রয়াত ইসরাফিল আলম। তার স্ত্রী পারভীন সুলতানা বিউটি মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন।

কিছুদিন আগে শুন্য হওয়া ৫টি আসনে উপনির্বাচন হয়েছে। বগুড়া-১ ছাড়া বাকি চারটিতেই প্রয়াত এমপি পরিবারের বাইরে থেকে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছিলেন শেখ হাসিনা।

গাইবান্ধা-৩, যশোর-৬, বাগেরহাট-৪ আসনে প্রয়াত এমপিদের পরিবারের কেউ মনোনয়ন পাননি। ঢাকা-১০ আসনের এমপি ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র পদে নির্বাচন করার কারণে পদত্যাগ করেছিলেন। এই আসনের উপনির্বাচনে তাপসের ভাই শেখ ফজলে শামস পরশ কিংবা স্ত্রী আফরিন তাপস মনোনয়ন পাবেন এমন গুঞ্জণ উঠেছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগের মনোনয়নে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন।

যশোর -৬ আসনের প্রয়াত এমপি ইশমত আরা সাদেকের কন্যা নওরীন সাদেক মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। সেখানে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে এমপি হয়েছেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার। গাইবান্ধা-৩ আসনের প্রয়াত এমপি ইউনুস আলী সরকারের ছেলে ড. ফয়সল ইউনুস মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। উম্মে কুলসুম স্মৃতি আওয়ামী লীগের মনোনয়নে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন।