Sun. Apr 11th, 2021

অবশেষে সাত খুনের বিচার শুরু

ডেইলি বিডি নিউজঃ নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের দুটি মামলায় ৩৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেছেন আদালত।

সোমবার  নারায়ণগঞ্জের  জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেন সাত খুনের ঘটনায় দায়ের হওয়া দুই মামলার প্রধান আসামি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নূর হোসেন ও র‌্যাব-১১ এর প্রাক্তন তিন কর্মকর্তা তারেক সাঈদ, মেজর আরিফ হোসেন ও লেফটেনেন্ট কমান্ডার এম এম রানাসহ ৩৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করে দেন। এ দিন থেকে এই মামলার বিচার শুরু হবে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ওয়াজেদ আলী খোকন জানিয়েছেন, সাত খুন মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত তিনটি চাঁদাবাজির মামলায় নূর হোসেনকে সকাল সাড়ে ৯টায় নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাাজিস্ট্রেট কে এম মহিউদ্দিনের আদালতে হাজির করা হয়। এসময় নূর হোসেনের আইনজীবীরা পৃথক তিনটি চাঁদাবাজি মামলায় আসামির জামিন চাইলে আদালত শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে দুইটি মামলা বিচারের জন্য জেলা ও দায়রা জজ আদালতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। পরে সকাল ১১টায় আলোচিত সাত খুনের ঘটনায় দুটি মামলার অভিযোগ গঠনের জন্য নূর হোসেন ও র‌্যাবের প্রাক্তন তিন কর্মকর্তাসহ ২৩ আসামিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালতে হাজির করা হয়। শুনানি শেষে দুপুরে এই মামলায় অভিযুক্ত ৩৫ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী শুনানির ধার্য দিন থেকে স্বাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণসহ বিচার শুরু হবে।

এদিকে সাত খুন মামলায় নূর হোসেনসহ পাঁচজনের পক্ষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী আশরাফ উজ্জামান।

মামলার বাদী নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা হোসেন বিউটি আসামিদের পক্ষ থেকে হুমকির কথা উল্লেখ করে বলেছেন, আদৌ ন্যায়বিচার পাবেন কিনা সে বিষয়ে তিনি শঙ্কিত। সাক্ষীরা যেন নিরাপদে আদালতে এসে সাক্ষ্য দিতে পারেন তার জন্য প্রশাসনের কাছে তিনি নিরাপত্তা ও সহযোগিতা কামনা করেছেন।

২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোডের ফতুল্লার লামাপাড়া এলাকা থেকে সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাসহ সাতজনকে অপহরণের তিন দিন পর লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও তার ৪ সহযোগী হত্যার ঘটনায় তার স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি বাদী হয়ে একটি এবং সিনিয়র আইনজীবী চন্দন সরকার ও তার গাড়িরচালক ইব্রাহিম হত্যার ঘটনায় চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ প্রায় এক বছর তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী সংস্থা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ নূর হোসেন, র‌্যাবের প্রাক্তন তিন কর্মকর্তাসহ ৩৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। অভিযুক্ত আসামিদের মধ্যে র‌্যাবের ৮ সদস্যসহ ১২জন আসামি বর্তমানে পলাতক রয়েছে।