|
এই সংবাদটি পড়েছেন 2,773 জন

সৌন্দর্যের অনন্য সৃষ্টি ‘পানথুমাই ওয়াটারফল’

ফারহানা বেগম হেনাঃ সিলেটে অপরূপ সৌন্দর্যের অনন্য সৃষ্টি ‘পানথুমাই ওয়াটারফল’।  প্রতিবছরই এর রূপ দেখতে পানথুমাই গ্রামে আগমন ঘটে দেশি-বিদেশি বহু পর্যটকদের। আর পানথুমাই-এর সবচেয়ে আকর্ষনীয় স্থান হলো এই ‘মায়াবতী ঝর্ণা’।

সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট থানার পশ্চিম জাফলং ইউনিয়ন এ অবস্থিত পানথুমাই গ্রাম। আবার কেউ ভুল করে ভাববেন না যে এটি জাফলং এ অবস্থিত। এটি জাফলং থেকে প্রায় ২৫ কি.মি. দূরে, আর সিলেট শহর থেকে এর দূরত্ব ৪০ কি.মি.। জাফলং দিয়ে না গিয়ে সিলেটের এয়ারপোর্ট রোড হয়ে সালুটিকর হয়ে গেলে পথ কম হবে।

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাহাড়ের নিচে, একেবারে সীমান্ত ঘেঁষা এই পানথুমাই গ্রামটি আসলেই অসাধারণ। মেঘালয় রাজ্যের সারি সারি পাহাড়, ঝর্না, ঝর্না থেকে বয়ে আসা পানির স্রোতধারা, আর সেই স্রোতধারা থেকে সৃষ্টি হওয়া ‘পিয়াইন নদী’ আসলেই অসাধারণ। এ কারণেই নাকি বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর গ্রাম বলা হয় পানথুমাইকে।

মায়াবতী ঝর্ণা - পানথুমাই, সিলেট

মায়াবতী ঝর্ণা – পানথুমাই, সিলেট

পানথুমাই এ গেলে কেউ এই পিয়াইন নদীতে সাঁতার না কেটে ফিরে আসলে তার ভ্রমণ বৃথা হয়ে যেতে পারে। আর দিগন্ত বিস্তৃত চারণ ভুমি দেখতে পাবেন এই গ্রামটিতে।
যেভাবে যাবেনঃ ঢাকা থেকে সিলেট গিয়ে আম্বরখানাপয়েন্ট থেকে সিএনজি বা ট্যাক্সি নিয়ে বলবেন গোয়াইনঘাট এর মাতরতুল এ যাবেন। ভাড়া পরতে পারে ৬০০ টাকা – ৭০০ টাকা (রিসার্ভ), সেখান থেকে মাত্র ২ কি.মি পরেই এই পানথুমাই। পানথুমাই পুরো ঘুরে দেখলে বুঝবেন জায়গা টা আসলেই অনেক সুন্দর।