Wed. Dec 2nd, 2020

ইমাম সমিতির ডাকে উত্তাল সিলেট

ডেইলি বিডি নিউজঃ ফ্রান্স সরকার কর্তৃক রাষ্ট্রীয় মদদে বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) কে ব্যাঙ্গচিত্রের মাধ্যমে অপমানিত করার প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) বাদ জুমা বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগরীর উদ্যোগে সিলেটের ঐতিহাসিক কোর্ট পয়েন্টে বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সিলেট নগরীর প্রায় প্রতিটি মহল্লা থেকে মসজিদের ইমাম ও জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বে মুসল্লিরা মিছিল সহকারে এসে দলে দলে সিলেট কোর্ট পয়েন্টে সমবেত হতে থাকেন। মুসলিম জনতার এই ঢল সমাবেশকে মহাসমাবেশে রুপান্তরিত করে। সর্বস্তরের রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে তাদের আবেগ জড়িত কন্ঠে প্রতিবাদ ব্যক্ত করেন।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, মানবতার মুক্তির দিশারি, সমগ্র মানবজাতীর জন্য অনুকরণীয় আদর্শের নবী, বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমানদের প্রাণের স্পন্দন বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) কে অপমান করার জন্য কার্টোন/ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে ফ্রান্স সরকার কঠিন অপরাধ করছে। এজন্য ফ্রান্স সরকারকে অনতিবিলম্বে বিশ্ব মুসলিমের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। ইসলাম শান্তির ধর্ম, মুসলমানরা শান্তি প্রিয় ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বিশ্বাসী। এজন্য বিশ্বের কোথাও কোনো মুসলমান অন্য কোন ধর্মকে নিয়ে কোনও ব্যাঙ্গাত্মক মন্তব্য করেননি। এমনকি কোনো সংখ্যাগরিষ্ট মুসলিম রাষ্ট্রেও ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের প্রতি কোন রকমের অন্যায় করা হয়নি। অথচ আমরা লক্ষ্য করছি পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় কিছু অপশক্তি, সন্ত্রাসী চক্র বিদ্বেষ ছড়াতে এবং সাম্প্রদায়িক বিভেদ তৈরি করে পৃথিবীতে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য পরিকল্পিতভাবে আল্লাহ, ইসলাম ও মুসলমানদের নবীকে নিয়ে নানা রকম কটুক্তি, ও ব্যঙ্গ বিদ্রুপ ও অবমাননাকর আচরণ করে যাচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে ফ্রান্স সরকারও এরকম জঘন্য আচরণে প্রকাশ্যে শামিল হয়েছে, যা ঘৃণিত ও বিশ্বব্যাপী চরম সমালোচিত। ফ্রান্স সরকারের অবশ্যই জেনে থাকার কথা যে বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় অনেক ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠান ইতোপূর্বে ইসলাম ও বিশ্ব নবীর অবমাননার অপরাধে দেশান্তরীত হয়েছেন এবং বিশ্ব সমাজ থেকে উপেক্ষিত ও অবাঞ্ছিত হয়েছেন। সুতরাং আমরা ফ্রান্স সরকারকে জানিয়ে দিতে চাই যে, তার এই ঘৃণ্য কাজের জন্য অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে এবং ইসলাম অবমাননার সকল কর্মকান্ড চিরতরে বন্ধ করতে হবে। নাহলে বিশ্বের মুসলমানগন ফ্রান্সকে অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু করার জন্য ফ্রান্সের সকল পণ্য বর্জন ও সার্ভিস বয়কট করবে। ইসলাম ও বিশ্ব নবীর অবমাননার কারণে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে মুসলমানগন জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে সর্বাত্মক আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাবে।

জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগরীর সভাপতি মাওলানা হাবীব আহমদ শিহাবের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আবিদ হাসান ও প্রচার সম্পাদক মাওলানা মাছুম আহমদের যৌথ পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, জেলা জমিয়তের সেক্রেটারী মাওলানা আতাউর রহমান, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগর সহ সভাপতি মাওলানা শহীদ আহমদ, মাওলানা নুর আহমদ ক্বাসেমী, মাওলানা আহমদ সগীর, যুবনেতা মাওলানা নজরুল ইসলাম, খেলাফত মজলিস সিলেট জেলার সহ সাধারন সম্পাদক মাওলানা মখলিছুর রহমান, মাওলানা মাসুক আহমদ সালামী, মাওলানা আশরাফ আলী মিয়াজানী, মাওলানা আব্দুর রহমান শাহাজাহান, মাওলানা ইহতেশামূল হক ক্বাসেমী, মাওলানা আহমদ হোসেন, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগরীর সহ সভাপতি মাওলানা জাহিদ উদ্দিন চৌধুরী, ব্যবসায়ী মাওলানা ছদরুল আমীন, বিশিষ্ট সমাজসেবী মাওলানা একরামূল আজিজ, হাফিজ মাওলানা আব্দুস সামাদ, মাওলানা আশরাফ উদ্দিন চৌধুরী, মুফতি বিলাল উদ্দিন, মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, আম্বরখানা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা সালেহ আহমদ প্রমুখ। সমাবেশে ইসলামী সংগীত পরিবেশন করেন জাগরণ ইসলামী সাংস্কৃতিক দলের পরিচালক হাফিজ আব্দুল করিম দিলদার প্রমুখ।
সমাবেশ থেকে জাতীয় ইমাম সমিতির পক্ষ হতে বাংলাদেশ সরকার ও জাতীসংঘের কাছে কিছু দাবি পেশ করেন জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগর সভাপতি মাওলানা হাবীব আহমদ শিহাব। দাবিগুলো হলো:
১. ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ কর্তৃক আইন পাশ করতে হবে ।
২. বিশ্ব মুসলিমের কাছে ফ্রান্স সরকার অবিলম্বে ক্ষমা চাইতে হবে।
৩. ক্ষমা চাওয়ার আগ পর্যন্ত ফ্রান্সের সকল পণ্য বর্জন করতে হবে।
৪. বিশ্ব মুসলিমরাষ্ট্রের সংগঠন ও.আই.সি কর্তৃক ফ্রান্স সরকারকে উক্ত ঘৃণ্য কাজের জন্য ক্ষমা চাইতে চাপ প্রয়োগ করতে হবে ।
৫. বাংলাদেশ সরকার ফ্রান্স সরকারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে কঠোর ভাষায় নিন্দা জানাতে হবে ।
৬. বাংলাদেশের সকল ধর্ম বর্ণের প্রতি সংখ্যাগরিষ্ট মুসলমানগন অতীতের মতো সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুন্ন রাখতে হবে।
৭. বিজ্ঞপ্তি