Wed. Dec 2nd, 2020

গোয়াইনঘাটে নারীদের উপর হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৫

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধিঃ সিলেটের গোয়াইনঘাটে প্রতিপক্ষের হামলার ঘটনায় গোয়াইনঘাট থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। মামলা নং ৩২ তারিখ ৩০(১০)২০২০ইং। উক্ত মামলার এজহার নামীয় ৫ জন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, লেঙ্গুড়া গ্রামের মৃত হাবিব উল্লাহর ছেলে মকদ্দস মিয়া (৬০) ও মছব্বির আলী (৭০), একই গ্রামের মশ্রব আলীর ছেলে কামরুল ইসলাম (২০), শুক্কুর আলীর ছেলে রাজীব মিয়া (২০) এবং মছব্বির মিয়ার ছেলে ফখরুল ইসলাম (২০)। ধৃত ব্যক্তিদের ৩০ অক্টোবর শুক্রবার সকালে সিলেট কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের একটি সূত্র।

জনা যায়, গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদের নির্দেশে ২৯ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় গোয়াইনঘাট থানার এসআই মাসুম একদল পুলিশ নিয়ে লেঙ্গুড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে উক্ত মামলার এজাহার নামীয় ৫ জন আসামিকে গ্রপ্তার করেন।

উল্লেখ্য, নারীদের উপর বর্বরোচিত উক্ত ঘটনাটি বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সকাল ৮টার দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলার লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের লেঙ্গুড়া গ্রামে ঘটে। উক্ত বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় লেঙ্গুড়া গ্রামের মৃত ইসলাম উদ্দিনের ছেলে কালা মিয়া বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। কালা মিয়া বাদী হয়ে থানায় দেয়া অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ২৯ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) সকাল ৮ টার দিকে কালা মিয়ার পৈত্রিক জমিতে এজাহারে উল্লেখিত দুই কিশোরীসহ ১২/১৩ জন মহিলা সবজি তলায় কাজ করছিলেন। এসময় লেঙ্গুড়া গ্রামের মৃত হাবিব উল্লাহর ছেলে মকদ্দস মিয়া, মছব্বির মিয়া, মশ্রব আলী কইতরের ছেলে কামরুল ইসলাম, মছব্বির মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম, মৃত শুক্কুর আলীর ছেলে রাজীব মিয়া,মশ্রব আলী কইতরের ছেলে সুমন। সবজি তলায় কাজে ব্যস্ত মহিলাদের উপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করেন। এঘটনায়
আহতদের মধ্যে লেঙ্গুড়া গ্রামের মৃত ইসলাম উদ্দিনের স্ত্রী হানিফা বেগম, মঈন উদ্দিনের স্ত্রী তেরাবান বিবি,মৃত বশির উদ্দিনের স্ত্রী নেওয়ারুন,সেলিমের স্ত্রী রুমানা বেগম, ইসলাম উদ্দিনের মেয়ে এবারুন নেছা,মঈন উদ্দিনের মেয়ে রাশিদা বেগম। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। এতে দুই কিশোরীসহ ১০ জন মহিলা আহত হন। আহতদের মধ্যে ৪জন মহিলা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরলেও গুরুতর আহত আরো ৬ মহিলা গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। উক্ত ঘটনার অভিযোগ পেয়ে প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় ওইদিন সন্ধ্যায় আসামিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ বলেন, লেঙ্গুড়া গ্রামে হামলার ঘটনায় মৃত ইসলাম উদ্দিনের ছেলে কালা মিয়া বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বিষয়টি প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় আসামি উপর মামলা রুজু করা হয়ে। আসামিরা উশৃংখল প্রকৃতির লোক হওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে তাদের গ্রেপ্তার করে ৩০ তারিখ শুক্রবার কোর্টে প্রেরন করা হয়েছে।