Sat. Dec 5th, 2020

গোয়াইনঘাট ১০ টি গ্রামের মানুষের দুর্দশা লাঘবে দীর্ঘ ১২০ ফুট বাঁশের সাঁকো নির্মাণ

সৈয়দ হেলাল আহমদ বাদশা, গোয়াইনঘাটঃ
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার রুস্তমপুর ইউনিয়নের হাদারপার-লামনী রাস্তার লালটিকির নামক ভাঙ্গার ব্রিজটি বিধ্বস্ত হওয়ায় রুস্তমপুর ইউনিয়নের পাতলীকোনা, রায়গড় পশ্চিম রুস্তমপুর বাসীসহ প্রায় ১০টি গ্রামের মানুষের গোয়াইনঘাট সদর ও জেলা সদরের সাথে যোগাযোগ সম্পূর্নভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল।

জানা যায়, এই স্থানে একটি ব্রীজ তৎকালীন চেয়ারম্যান মরহুম বশির আহমদ চৌধুরীর সময়কালে নির্মিত হলেও কালের বিবর্তনে আর মহু মহু বন্যার আক্রমণে তা বিধস্ত হয়ে পড়ায় প্রায় দশটি গ্রামের ২০ থেকে ২৫ হাজার মানুষের জনভোগান্তি চরম আকার ধারন করেছে। এমনকি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার প্রায় মানুষের যাতায়াত এই রাস্তা দিয়ে। যা বর্তমান রুস্তমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দিন সিহাব কে ভাবিয়ে তুলে। এ নিয়ে দীর্ঘদিন চিন্তাভাবনা করার পরও কোনো কূলকিনারা পাচ্ছিলেন না, পরিশেষে নিজ উদ্যোগে জনগণের দুর্দশা লাঘবে নিজস্ব তহবিল থেকে ৫৫ পচ্ছান্ন হাজার টাকা ব্যয়ে ১২০ ফুট দীর্ঘ লম্বা বাঁশের এই সাঁকো নির্মাণ করে দেন।
১৭ অক্টোবর সাকু তৈরির প্রাথমিক কাজ শুরু করেন এবং গতকাল ৩০ অক্টোবর শুক্রবার সাঁকোর সম্পন্ন কাজ সমাপ্ত করেন। দৈনিক পাঁচ থেকে ছয় জন শ্রমিক কাজ করেন এই বাঁশের তৈরি সাঁকো নির্মাণে।
৪ নং ওয়ার্ড সদস্য জালাল উদ্দিন ও ২নং আজির উদ্দীন বলেন আমাদের চেয়ারম্যান সব সময় জনকল্যাণমুখী জনসেবায় নিয়োজিত। তিনি মানুষের সেবা করে আনন্দ পান আমরাও তাঁর সাথে কাজ করে আনন্দ পাই। উনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এবং আর্থিক যোগান দেওয়ায় ওয়ার্ড সদস্যরা এবং এলাকাবাসীর মিলে সাঁকো তৈরীর কাজ সম্পন্ন করতে পেরেছি।

রুস্তমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দিন সিহাব বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আশেপাশের গ্রামের লোকজন খুব ভোগান্তিতে ছিলেন, এই সাঁকো নির্মাণে সাধারণ মানুষসহ কোম্পানীগঞ্জ গোয়াইনঘাট সদরে যাতায়াত সহজ হলো এবং ভারী যানবাহন না চললেও বাইক নিয়ে মানুষ পারাপারে আর কোন অসুবিধা থাকবে না। যদিও আমি অর্থের অনুদান দিয়েছি কিন্তু ওয়ার্ড সদস্যগন ও এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় সাঁকুর বাস্তবায়ন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এটা তাদের এবং সাধারণ জনগণের প্রাপ্য। তিনি আরো বলেন এটা দীর্ঘস্থায়ী কোনো সমাধান নয়। দীর্ঘস্থায়ী সমাধান করতে এখানে একটি ব্রিজ নির্মাণ প্রয়োজন আমি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

রুস্তমপুর ইউনিয়নের কয়েকজন এলাকাবাসী জানান ব্রিজটির জন্য চরম ভোগান্তিতে আছেন। এটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ ব্রীজ। ব্রীজের কাজ দ্রুত নির্মাণে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘবে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী দৃষ্টি দিবেন বলে তারা আশাবাদী। বর্তমান এই বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে দেওয়ায় তারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহাবুদ্দিন শিহাবের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।