Sun. Apr 11th, 2021

মানবসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য পুরস্কার পেলেন নারী সংগঠক শারমীন কবীর

ডেইলি বিডি নিউজঃ মহামারি করোনা (কোভিড-১৯) মোকাবেলায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানবসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা স্মারক পেয়েছেন স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন সিলেট আলোকিত যুব সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি শারমীন কবীর। বঙ্গবন্ধু জাতীয় যুব দিবস-২০ উপলক্ষ্যে ১লা নভেম্বর রবিবার বেলা ১১টায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সিলেট এর উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা, সনদপত্র প্রদান ও যুব ঋণের চেক বিতরণী অনুষ্ঠানে সংস্থার পক্ষে সম্মাননা ক্রেষ্ট ও সনদপত্র গ্রহণ করেন সংস্থার সভাপতি শারমীন কবীর।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শারমিন সুলতানার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেটের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সিলেটের উপ-পরিচালক মো. আলা উদ্দিন।

সিলেটের সর্বজন পরিচিত নারী সংগঠক শারমীন কবীর। যিনি সিলেটে যুবদের সংগঠিত ও প্রশিক্ষিত করে আত্মকর্মী হিসেবে গড়ে তুলতে অবদান রাখছেন।
শারমিন কবীর ২০০৪ সালে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, সিলেট থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এই বছর তিনি সিলেট প্রশিক্ষিত যুব সংসদ (প্রযুস) এর সাথে সম্পৃক্ত হন।২০১১ সালে পরিবারের ইচ্ছাতেই বিয়ে করেন শারমিন কবীর ব্যবসায়ী এম এস কবীরকে। বিয়ের পর তার স্বামীর কাছে মনের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন যে, তিনি সমাজের মানুষের জন্য কাজ করতে চান। স্বামীর উৎসাহ নিয়ে ২০১২ সালে অনন্যা যুব সংস্থার সাথে যুক্ত হয়ে সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করেন। কিছু দিনপর সংস্থার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এ সময় তিনি সিলেটে সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনায় ব্যপক প্রসংশা অর্জন করেন।

২০১৬ সালে তিনি বিভাগীয় যুব পদক অর্জন করেন। ২০১৭ সালে তিনি আরও এক ঝাক তরুণ তরুণীদের সাথে নিয়ে ১ সিলেট আলোকিত যুব সমাজকল্যাণ সংস্থা নামে একটি যুব সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন। যা ২০১৮ সালে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে নিবন্ধত হয়।
শারমিন কবীর তার সংগঠনের মাধ্যমে অটিস্টিক শিশুদের কল্যাণে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। প্রতিবন্ধিদের বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার পাশাপাশি তাদের নগদ অর্থ, হুইল চেয়ারসহ নানাভাবে সহযোগীতা করে থাকেন। এছাড়াও মসজিদ-মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বৃক্ষরোপন করে থাকেন।

শারমিন কবীর ২০২০ সালে করোনা পরিস্থিতে অসহায় ও গরীব পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী সহায়তা প্রদান করেন। তিনি রাতের আধারে মানুষের বাসায় বাসায় গিয়ে খাদ্য বিতরণ করেন। শহরে ঘুরে ঘুরে নাইট গ্রার্ডদের মাঝে খাদ্য প্রদান করেন। তিনি ব্যাপক হারে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেন। এছাড়াও প্রতি বছর বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে নিজ অর্থায়নে ত্রাণ বিতরণ করে থাকেন।

পবিত্র রমজান মাসে নিজ হাতে ইফতারী রান্না করে বিভিন্ন বস্তির অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করেন। ২০২০ সালে পবিত্র ঈদুল ফিতরের সময় সংবাদ মাধ্যমে জানতে পেরে অসহায় বেদে পল্লীতে গিয়ে ১০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। পাশাপাশি বন্যাকবলিত অসহায় মানুওে ২০০ পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।

মানবতার সেবায় নিবেদিত প্রাণ শারমিন কবীর প্রতি মাসে ১০ জন মানুষের চিকিৎসা খরচ প্রদান করেন।
শারমিন কবীর বিভিন্ন সামজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, মহিলা কমিটি, সিলেট মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও গ্রেটার সিলেট ডেভেলাপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল ইন ইউকে এর মহিলা বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। মানবতাবাদী শারমীন কবীর আজীবন মানুষের সেবা করে যেতে চান। তিনি সকলের দোয়া প্রার্থী।