Thu. Nov 26th, 2020

তাহিরপুর আলীম মাদ্রাসার নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার হিফজু উলুম আলীয়া মাদ্রাসার ৬টি বিভিন্ন পদে নিয়োগে অনিয়ম,দুর্নীতিরসহ প্রায় ৩০লাখ টাকার ঘুষ বানিজ্যে অভিযোগ উঠছে। এই ব্যাপারে বুধবার (৪ নভেম্বর) নিয়োগ বাতিলের দাবীতে মহাপরিচালক মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড,ঢাকা,দূর্নীতি দমন কমিশন, ঢাকা, সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছে।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানাযায়,গত ২৭ অক্টোবর তাহিরপুর হিফযুল উলুম আলীম মাদ্রাসায় ৬ টি পদে জনবল নিয়োগের পরীক্ষা নেয়া হয়েছে। প্রার্থীত পদাবলী যথাক্রমে ১-অধক্ষ্য ২-উপাধ্যক্ষ ৩-হিসাব রক্ষক ৪-অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার ৫-আয়া ৬-নিরাপত্তাকর্মী। বর্নিত পদাবলিতে দুইবার পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পাচঁশত টাকা ড্রাফট এর মাধ্যমে দরখাস্থ আহবান করা হলেও নিজেরদের লোকদের নিয়োগের জন্য মাদ্রাসাটির নিজ জেলা হইতে বিভাগীয় শহর সিলেট জেলায় সিলেট সরকারী আলীয়া মাদ্রাসায় নির্বাচনী পরীক্ষা নেওয়া হয়। নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ডের সভাপতি আমিনুল ইসলাম ও সদস্য জনাব তালিমুল ইসলাম (দুলাল)সহ নির্বাচনী বোর্ডের মনোনীত প্রার্থী ৬জন তারা সবাই পরস্পর ঘনিষ্ট নিকটতম আত্নীয়।

অথচ নিয়োগ বিধি উপেক্ষা করে সভাপতি ও সদস্য তারা উভয়ই তাদের নিজস্বার্থ ও উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে নিয়োগ নির্বাচনী পরীক্ষায় সদস্য মনোনীত হয়েছেন। সভাপতির একান্ত গোপ্তসহচর মাদ্রাসার ইংরেজী প্রভাষক আশিকুর রহমান নিয়োগ নির্বাচনী পরীক্ষার সভাপতি ও সদস্য তাজিমুল ইসলামের আত্নীয় যাদেরকে ২৭ তারিখ নির্বাচনী পরীক্ষায় নির্বাচিত ঘোষনা করা হয়েছে তাদেরকে নিয়ে অনুুষ্টিতব্য পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দিয়া সিলেট সরকারী আলীয়া মাদ্রাসার একটি কামড়ায় প্রশিক্ষন দেয়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, বিভিন্ন পদে অনেক প্রার্থীকে ইন্টারভিউ কার্ড না দিয়ে প্রক্সিলোক দ্বারা পরীক্ষায় অংশ গ্রহন দেখাইয়া মাদ্রাসার সভাপতি আমিনুল ইসলামের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার হিসাব রক্ষক পদে,সদস্য জনাব তাজিমুল ইসলাম(দুলাল)এর আপন ভাই উপাধ্যক্ষ পদে শরিফুল ইসলামের ভগ্নিপতি অধ্যক্ষ পদে মহিবুর রহমান,অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার পদে মুনতাছির বিল্লাহ,আয়া পদে শাপলা আক্তার ও নৈশ প্রহরী পদে আবু আলী (সানী)কে যোগসাজোস ও রক্ত সম্পর্কিয় আত্নীয়র টানে ও নিজের স্ত্রীকে নিয়োগ নির্বাচনে নির্বাচিত বলিয়া ঘোষনা করেন। বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্টানে নিয়োগ নির্বাচনী বিধান মতে পরীক্ষার্থীর আত্নীয় থাকা সত্ত্বেও নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ডে সভাপতি আমিনুল ইসলাম ও সদস্য জনাব তাজিমুল ইসলাম (দুলাল)সহ নির্বাচনী বোর্ডের সদস্য মনোনীত হইয়া নিজ আত্নীয়দেরকে নির্বাচিত করার জন্যই নিয়মবর্হিভূত ভাবে নিয়োগ নির্বাচনী পরীক্ষা গ্রহন করা হয়। যা সম্পূর্ন অন্যায় ও সরকারী বিধি লঙ্গন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ঘুষ ও দুর্ণীতির বিষয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মসন সিংহ লিখিত অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি শিকার করে বলেন, এই বিষয়ে একটি তদর্ন্ত কমিটি ঘঠন করে এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় প্রদক্ষেপ গ্রহন করব।