Wed. Dec 2nd, 2020

জৈন্তাপুর মহিলা মাদ্রাসায় গাফফার ও হানিফ চক্রের জোরপূর্বক প্রবেশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পরিচালনা কমিটি

ডেইলি বিডি নিউজঃ জৈন্তাপুর জামেয়া ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রাসার ক্যাম্পাসে বহিষ্কৃত প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত সুপার আব্দুল গাফফার ও বখাটে আব্দুল হানিফ গংদের জোরপূর্বক প্রবেশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে জৈন্তাপুর ইসলামিক সোসাইটি ও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি। আজ মঙ্গলবার জৈন্তাপুর ইসলামিক সোসাইটি ও জৈন্তা মহিলা মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি এডভোকেট আব্দুল আহাদ, সহ-সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুল খালিক, সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সদস্য মাওলানা আব্দুর রহমান এক যুক্ত বিবৃতিতে,জৈন্তাপুর ইসলামিক সোসাইটি পরিচালিত ও প্রতিষ্ঠিত জৈন্তা মহিলা মাদ্রাসা দখলের অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়েছেন। তারা বলেন, একটি প্রতিক্রিয়াশীল ষড়যন্ত্রকারী গোষ্ঠীর লোলুপ দৃষ্টি পড়েছে মাদ্রাসাটির প্রতি। তারা যে কোনভাবে মাদ্রাসা দখলের জন্য মরিয়া উঠেছে। পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০০৭ সালে আমরা জৈন্তাপুর ইসলামিক সোসাইটির উদ্যোগে এ মাদ্রাসার জন্ম দিয়েছি। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সোসাইটি কিবা মাদ্রাসার সাথে আব্দুল গাফফার, হানিফ ও আখলাকুল আম্বিয়ার দুরতম কোন সম্পর্ক ছিল না এবং এ পর্যন্ত নেই। তারা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, করোনা মহামারীর এ দুর্যোগের সময় প্রতিষ্ঠান বন্ধকালীন সম্পূর্ণ আমাদের অগোচরে ও গোপনে আখলাকুল আম্বিয়ার প্ররোচনায় ও ইন্ধনে গত ১৫ নভেম্বর রবিবার সকালে চোরাচালানী গাফফার ও বখাটে হানিফ মাদ্রাসা দখলের হীন উদ্দেশ্য ও কূমতলবে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। দারোয়ান কে জিম্মি করে অনেক দলিল দস্তাবেজ ও সম্পদ দখল করে নেয়। পরিচালনা কমিটি এর তীব্র নিন্দা জানান। তারা বলেন, অনতিবিলম্বে মাদ্রাসার সম্পদ ও ডকুমেন্ট ফিরিয়ে না দিলে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবেন। সোসাইটি ও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ বলেন, আমাদের সরলতা কিংবা ভদ্রতাকে দুর্বল মনে করবেন না। আমাদের রক্তমাংসে গড়া এ প্রতিষ্ঠান নিয়ে আর ষড়যন্ত্র করবেন না। ছিনিমিনি অনেক খেলেছেন। প্লিজ এবার বন্ধ করুন।

পরিচালনা কমিটি বহিষ্কৃত সুপার গাফফার কে মাদ্রাসায় প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা দেন এবং আব্দুল হানিফ ও আখলাকুল আম্বিয়া কে অর্থহীন অনধিকার চর্চা ও মাদ্রাসা দখলের অপচেষ্টা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানান।