Sun. Nov 29th, 2020

তাহিরপুরে স্বামী থাকার পরও বিধবা ভাতা উত্তোলন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে বিভিন্ন গ্রামে বিধবা ভাতা উত্তোলন করলেও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের গাফিলতির কারনে সরকারের এই সুবিধা কে বানিজ্যে পরিনত করেছে অসাধু কিছু লোক। তারা অর্থের বিনিময়ে স্বামী থাকার পরও বিধবা দেখিয়ে ভাতা উত্তোলন করে দিচ্ছ আর এমনি চিত্র দেখা গেছে তাহিরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের মধ্য তাহিরপুর গ্রামে।

জানাযায়,উপজেলার সদর ইউনিয়নের সূর্য্যেরগাও গ্রামের বাসিন্দা নাদিরা বেগম তার স্বামীঃ তুষা মিয়া জীবিত আছে তবে কাজের স্বার্থে অন্যত্র থাকেন আর সময় সুযোগ করে বাড়িতে আসেন। এর পরও তিনি বিধবা ভাতার জন্য আবেদন করেছেন। কাজল বেগম, স্বামীঃ সমাদ ও আকাশ তারা,স্বামীঃ মাসুক মধ্য তাহিরপুর উপজেলার সদরের মেশিন বাড়ি এলাকায় বসবাস করেন। তারাও বিধবা ভাতার জন্য সমাজ সেবা কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছেন। তাদের আবেদন অনুযায়ী যাচাই বাছাই না করেই বিধবা ভাতার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ ও গ্রহণ করেছে উপজেলা সমাজ সেবা কার্য্যালয়।

শুধু এখানেই শেষ নয় উপজেলার প্রতি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামেই একটি সংঘবদ্ধচক্র রয়েছে যারা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার,চেয়ারম্যান ও সমাজসেবা কার্য্যালয়ের কর্মরতদের ভুল তথ্য দিয়ে ম্যানেজ করেই দীর্ঘদিন ধরেই সরকারের টাকা লুটপাট করছে।

উপজেলার সচেতন মহল জানান,বিধবা ভাতার নামে সরকারের টাকা বানিজ্যে পরিনত করেছে একটি সিন্ডিকেট। তারা বিভিন্ন ভাবে সরকারের দেয়া বিভিন্ন সুবিধা লুটপাটে মহাব্যস্থ তাই সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন না হয় তার জন্য সকল বিষয়ে দায়িত্বশীলদের যাচাই বাচাই করে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত।
এদিকে তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন স্বামী পরিত্যক্ত পাহিমা আক্তার দু সন্তানের জনক। গত চার বছর ধরে তার স্বামী তাকে তালাক দিয়েছে। একন তিনি সন্তান নিয়ে বাবার বাড়িতে অবস্থান করছে। তিনি স্বামী পরিত্যক্ত হিসাবে ডমাজ সেবা কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেও কোন সুফল পান নি। তিনি ক্ষুবের সাথে জানান,যাদের স্বামী আছে তারা বিধবা ভাতা পায় আর আমি বার বার আবেদন করেও ভাতা পায় নি।

এই বিষয়ে তাহিরপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা তৈফিক আহমেদ জানান,যাচাই বাচাই করে কমিটি আমাদের কাছে যাদের নামের তালিকা পাঠায় তাদের বিষয়ে আমরা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করি। স্বামী থাকার পরও বিধবা দাবী করে ভাতা উত্তোলন করছে আমাদের কাছে অভিযোগ করলে গুরুত্বসহকারে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।