Sun. Apr 11th, 2021

শাহপরাণে সুগা-রুনীর মাদক স্পট বন্ধের দাবিতে পুলিশ কমিশনার বরাবরে আবেদন

ডেইলি বিডি নিউজঃ সিলেট শহরতলির শাহপরান এলাকার খাদিম চৌমুহনী ও শাহপরান আবাসিক এলাকার বাসিন্দারা মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজ সুগা রানী ও রুনী তাতীর মাদক স্পট বন্ধের দাবিতে সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার বরাবরে আবেদন করেছেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে পুলিশ কমিশনার নীশারুল আরিফের কাছে ওই আবেদন দেয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন চৌমুহনী বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন, শাহপরান উপশহরের বাসিন্দা সোহেল আহমদ ও সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ডালিম।

আবেদনে বলা হয়, মাদক সম্রাট সাক্ষাৎ, মাদক স¤্রাজ্ঞি রিনা বেগম ওরফে রুনী তাতি, মাদক সম্রাজ্ঞি সুগা রানী, শাওন, শাকিল, শ্যামলী, নীতি, বিশ্ব, রাজ, সালামসহ একটি বাহিনী শাহপরান উপশহরের ৩ (৪) নং রোডে মদ ও ইয়াবা ব্যবসার আস্তানা গড়ে তুলেছে। রুনী তাতি ও সুগা রানী বসত বাড়ীতে মাদকের স্পটগড়ে তোলে এলাকায় সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজী কার্যকলা পকরে আসছে। এই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের মাদক কেনা-বেচা ও নিজেদের বাড়িতে অবাধে মাদক সেবনের ব্যবস্থা করায় এলাকার আইনশৃঙ্খলা, সামাজিক পরিবেশে বিঘœ ঘটছে।

শাহপরান উপশহরএ লাকাসহ আশপাশ এলাকায় তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলেই বসবাসকারী নিরীহ জনগণের বসত বাড়িতে হামলা, ভাংচুরের ভয়াল তা-ব চালায়। তারা মাদক ব্যবসা, মাদক সেবন, আগত মাদক সেবীদের আমোদ প্রমোদের ব্যবস্থা করে শাহপরান উপশহর আবাসিক এলাকাকে এক নরকরাজ্যে পরিণত করেছে। দিন দুপুরে ও সন্ধ্যা নামার সাথে সাথেই কুখ্যাত আমোদ প্রিয় ও মাদক সেবীরা আবাসিক এলাকার বিভিন্ন রাস্তা দিয়ে প্রবেশ করে প্রকাশ্যে যাতায়াত করে মাদক সেবন করে আসার সময় মাতলামি করায় বসবাসকারী জনগণ, কোমলমতি শিশু ও উঠতি বয়সী যুবক, শিক্ষার্থীদের নানাভাবে হয়রানি করছে। তাদের এসব সমাজ বিরোধী কার্যক্রমের ফলে অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। এই আবাসিক এলাকায় তাদের চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী হামলার জন্য কেউ নিরাপদে বসবাস করতে পারছেননা।

ওই অবস্থায় উল্লেখিত বিষয়ে গত ১৮ নভেম্বর শাহপরান উপশহর আবাসিক এলাকার বাসিন্দা ও খাদিম চৌমুহনী এলাকার ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের গণস্বাক্ষর সম্বলিত একটি দরখাস্ত শাহপরান (রহঃ) থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবরে দাখিল করলে এলাকায় পুলিশের টহল বৃদ্ধি পা। পুলিশ এলাকা থেকে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। গত ২৬ নভেম্বর সন্ধ্যার পর র‌্যাব-৯ মাদক সম্রাজ্ঞী সুগা রানী ও রুনী তাতি এবং মাদক স¤্রাট সাক্ষাতের মাদক স্পট থেকে ২৫৫ লিটার মদ উদ্ধার করে মাদক সম্রাজ্ঞী সুগা রানীর স্বামী কানাই বসাককে আটক করে।

এ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে নিয়ে যাওয়ার পরপরই মাদক ব্যবসায়ী বাহিনী সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ডালিমের বসতবাড়িতে ব্যাপক হামলাচালিয়ে গেইট ভেঙ্গে অনধিকার প্রবেশ করে প্রকাশ্যে ভাংচুর ও লুট পাট চালায়। ২৩ নভেম্বর সকালে সাংবাদিক ডালিমের কাছে চাঁদাদাবি ও হুমকি প্রদান করে। ঘটনার সাথে সাথে পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছালে এলাকাবাসী সাংবাদিক ডালিমের বসতঘর রক্ষা করেন। পরিবারের সদস্য ও শিশুরা হামলার হাত থেকে রক্ষা পান। এই ঘটনায় ২৭ নভেম্বর সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ডালিম বাদি হয়ে চাঁদাবাজ, মাদকব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে শাহপরান থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার পর থেকে শাহপরান ও আশপাশ এলাকার সচেতন মহল মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করছেন। এর সাথে একাত্বতা ঘোষণা করে সিলেটের সাংবাদিকসমাজ, সামাজিক সংগঠন ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ।

এ অবস্থায় সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ ও মাদক ব্যবসায়ীর কয়েকজন গা-ঢাকা দিলেও তাদের সহযোগীদের হুমকিতে এলাকার মানুষ আতংকে দিন কাটাচ্ছেন। যারা প্রতিবাদ করছেন তাদের বসতবাড়িতে হামলার আশংকা রয়েছে। উল্লেখিত মাদক ব্যবসায়ীরা মিথ্যা মামলা ও হামলার হুমকি প্রদানকরছে।

এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার প্রার্থনা করে আবেদনে বলা হয় মামলার বিবাদীদের দ্রুত গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য ও এলাকার এই চিহ্নিত সুগা রানী ও রুনী তাতীর দুটি মাদক স্পট চিরতরে বন্ধ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করা হয়।