Fri. Jan 22nd, 2021

২০২০ সালে সিলেটের আলোচিত সমালোচিত ঘটনাবলী

ফারহানা বেগম হেনাঃ ২০২০ সাল। হতাশা, আতঙ্ক আর বিষাদের বছর! নানান আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর ঘটনার মধ্য দিয়েই পার হলো বছরটি। বছরের তৃতীয় মাসে বিশ্বের সঙ্গে মহামারী করোনাভাইরাসে জর্জরিত হয় বাংলাদেশ। তাই বছরটিকে মনে রাখা হবে নানা কারণে। তবে সেখানে বেদনার গ্লানিই বেশি। বছরটি প্রিয়জন হারানোর বেদনা দিয়েছে অনেক বেশি। এজন্য ‘অপয়া’ বছর হিসেবেই ২০২০ সালকে মনে রাখবে দেশের মানুষ। প্রকৃতির অমোঘ নিয়মে দিন যায় দিন আসে। আজ থেকে বদলে যাবে ক্যালেন্ডার,শুরু হবে নতুন চ্যালেঞ্জের পথযাত্রা।

এদিকে ২০২০ সালে সিলেটজুড়ে বিরাজমান ছিলো কতো ঘটনা-দুর্ঘটনা,হাসি কান্না বিষাদ উত্তেজনা। সব কিছুকে ছাপিয়ে নতুনের বার্তা নিয়ে আগামীকাল পূর্ব দিগন্তে উদিত হবে ইংরেজী নববর্ষের নবপ্রভাতের নবীন সূর্য। বিশ্ববাসী কাল স্বাগত জানাবে ২০২১ সালকে। সিলেটে ২০২০ সাল ছিল একটি ঘটনাবহুল বছর।

প্রাচীন আধ্যাতিক নগরী সিলেট। এককালে যা পরিচিত ছিলো জালালাবাদ নামে। আধুনিকতার ছোঁয়ায় বদলে যাচ্ছে সিলেট। তারের জঞ্জালবিহীন শহরের অচেনা দৃশ্য বছরের শুরুতে নজর কেড়েছে দর্শনার্থীদের। বর্তমানে নান্দনিক রুপে সাজানো হচ্ছে সিলেট সিটি কে যা খুবই প্রসংশার দাবি রাখে।

২০২০ সালের শুরুতে সিলেটের এমন উন্নয়ন দেশব্যাপী ছিল আলোচনায়। আর বছরের শেষ দিকে এসে কিছু আলোচিত অপরাধে ম্লান হয়ে যায় সিলেটের সব যশখ্যাতি।

এগুলো হলো-সিলেট এমসি কলেজে ছাত্রলীগ কর্তৃক তরুণীকে গণধর্ষণ ও পুলিশ ফাঁড়িতে যুবক রায়হান উদ্দিনকে পিটিয়ে হত্যা। আধ্যাত্মিক রাজধানী খ্যাত সিলেটে ঘটনাগুলো মানুষকে যেমন কষ্ট দিয়েছে,তেমনই ক্ষুব্ধ করে তুলেছিল।

বছরের শুরুর দিকে তাক লাগানো উন্নয়নে আলোচনায় আসে সিলেট। জানুয়ারি মাসে সিলেট নগরে ভূগর্ভস্থ লাইনে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু হয়। গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে সিলেটকে প্রথম ধাপে ডিজিটালাইজেশনের আওতায় নেওয়ার ঘটনা একটি মাইলফলক।

উন্নয়ন আলোচনায় বছর শুরু হলেও বছরের শেষ দিকে সেই অর্জন ম্লান করে দেয় দুই অপরাধের ঘটনা।

করোনাকালে সারা দেশের ন্যায় বন্ধ থাকা সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। গত ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যার এ ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগের ৮ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। ইতোমধ্যে ৩ ডিসেম্বর ৮ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে।

বছরের ১১ অক্টোবর ভোররাতে সিলেটের পুলিশ ফাঁড়িতে যুবক রায়হান উদ্দিনকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় ওঠে। ঘটনার পর পালিয়ে যান এসএমপির কোতোয়ালি থানাধীন বন্দরবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়া। এ ঘটনায় প্রথম পর্যায়ে ৪ পুলিশ বরখাস্ত ও ৩ জনকে প্রত্যাহার করা হয়। হত্যার বিচার দাবিতে লাগাতার আন্দোলনে ছিলেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। পলাতক আকবরকে ধরিয়ে দিতে ১০ লাখ টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করেন এক প্রবাসী। অবশেষে কানাইঘাটের সীমান্ত এলাকা থেকে গত ১০ নভেম্বর আকবরকে গ্রেফতার করা হয়। আকবরকে পালাতে সহায়তা করায় আরও ২ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত হন। রায়হান হত্যা মামলাটি পিবিআইর কাছে হস্তান্তর করা হলে আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এছাড়াও বছরের মাঝখানে করোনায় জীবন প্রদীপ নিভে যাওয়া সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ও ডা.মঈন উদ্দিনের মৃত্যু মানুষকে শোকগ্রস্ত করেছে।

সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডা.মইন উদ্দিন ৫ এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হন। তার মৃত্যু হয় ১৫ এপ্রিল।

করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৫ জুন সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র,আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের মৃত্যুর ঘটনা ছিল দেশজুড়ে আলোচিত।

২০২০ সালে সিলেটবাসী করোনার ছোবলে হারিয়েছে আরো ১৯৯ জন প্রাণ। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিরা হচ্ছেন-বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এবং সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি এম এ হক,প্রবীণ সাংবাদিক আজিজ আহমদ সেলিম,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সহপাঠী আব্দুল হান্নান সেলিম ও সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নার্স (ব্রাদার) রুহুল আমিন।

এছাড়াও ২০২০-এর শেষ ৯ মাস একের পর এক পল্লিচিকিৎসক,রাজনৈতিক ব্যক্তি,সমাজসেবী ও প্রবাসীদের কেড়ে নিয়ে করোনা একদিনের জন্যও শুকোতে দেয়নি সিলেটের মানুষের দু-চোখের অশ্রু।