Wed. Jan 27th, 2021

সিলেট ওসমানীনগরের দয়ামীর বাজারে বণিক কল্যান সমিতির নির্বাচনে,৭পদে লড়ছেন ১৬ প্রার্থী

কে এম রায়হান:: আগামী ১৬ই জানুয়ারি ২০২১অনুষ্ঠিত হবে দয়ামীর বাজার বণিক কল্যাণ সমিতির প্রথম নির্বাচন।এই প্রথম দয়ামীর বাজার বণিক কল্যাণ সমিতির নির্বাচনের মাধ্যমে আগামী তিন বছরের জন্য নেতৃত্বে আসবেন বিজয়ী প্রার্থীরা। নির্বাচনকে ঘিরে প্রার্থী, ব্যবসায়ী ও স্থানীয়দের মধ্যে বইছে উৎসবের আমেজ। দিন যত ঘনিয়ে আসছে প্রার্থীরা ছুটে বেড়াচ্ছেন ব্যবাসায়ীদের কাছে।ভোট কামনা করে দিচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি।আগামী ১৬ই জানুয়ারির নির্বাচনে সাত পদে লড়ছেন ষোল জন প্রার্থী। সভাপতি পদে লড়ছেন চার জন তারা হলেন, দয়ামীর বাজার বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আব্দুস শহিদ (আনারস), মোঃগৌছ আলী(চেয়ার), মাওঃ মাসুক আহমদ (চশমা), ও ইশতিয়াক আহমদ মামুন (ছাতা)। সহ-সভাপতি পদে লড়ছেন দুই জন তারা হলেন, মোঃ আইন উল্লা(ডাব) ও মোঃ আব্দুল করিম (মটর সাইকেল)।

সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন দুই জন তারা হলেন, মোঃ আক্তার আলী(টেবিল ফ্যান) ও মোঃ জুয়েল আহমদ(হরিণ)। সহ- সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন দুই জন তারা হলেন, গোলাম সারওয়ার জয়নাল(আম) ও মোঃ নাজমুল ইসলাম (রিক্সা)।কোষাধ্যক্ষ পদে দুই জন তারা হলেন, এমদাদুর রহমান এমাদ (মোরগ) ও মোঃ মাছুম উদ্দিন(মোবাইল ফোন)। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে দুই জন তারা হলেন, মানিক চন্দ্র পাল(টেলিভিশন) ও রাসেল আহমদ ( সিলিং ফ্যান)।সমাজ কল্যাণ পদে লড়ছেন রুম্মান আহমদ (মাছ) ও সাহেদুর রহমান সাহেদ(ফুটবল) মার্কা নিয়ে তারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।এছাড়া সদস্য পদে চারজন প্রার্থীতা ঘোষণা করলে ইতিমধ্যে কমিটির রেজুলেশন অনুযায়ী চার সদস্য পদে তারা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন কমিটির ঘোষণা অনুযায়ী তারা নির্বাচিত হয়েছেন।সরজমিনে বাজারের একাধিক ব্যবাসায়ীদের সাথে নির্বাচন নিয়ে কথা হলে তারা বলেন, আমরা আশাবাদী সকল ব্যবসায়ীর ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে দয়ামীর বাজারের বণিক কল্যাণ সমিতির নির্বাচনে যারাই বিজয়ী হবেন তারা সকলেই যোগ্য এবং ব্যবসায়ী বান্ধব হবেন। আর বিশেষ করে বাজারের ব্যবসার উন্নয়নে এবং ব্যবসায়ীদের যেকোনো প্রয়োজনে তারা নিরলস ভাবে কাজ করবেন। আমরাও সেই রকম প্রার্থীদেরকে ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে নির্বাচিত করতে চাই।একাধিক প্রার্থীদের সাথে নির্বাচন নিয়ে কথা হলে তারা বলেন,আমরা যারাই নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি সকলেই ব্যবসায়ী। তাই এই নির্বাচনে যারা বিজয়ী হবো সকলেই বাজারের বাণিজ্যিক কার্যক্রমকে আরো তরান্বিত করতে কাজ করবো। বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের যেকোনো প্রয়োজনে আমরা পাশে থাকবো। তবে জয়পরাজয় বড় কথা নয় আমরা যারাই এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি কারো মধ্যে সাংঘর্ষিক মনোভাব নেই। ব্যবসায়ীরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ভোটের মাধ্যমে যাদেরকে নির্বাচিত করবেন আমরা সকলেই তাদের সাথে একাত্মতা পোষণ করে বাজারের ব্যবসা এবং ব্যবসায়ীর কল্যাণে মিলেমিশে কাজ করবো।দয়ামীর বাজার বণিক কল্যাণ সমিতির প্রধান নির্বাচন কমিশনার হাজী উমর আলীর কাছে নির্বাচন নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে আমরা নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছি। এই নির্বাচনে দুইশত সত্তর জন ভোটারের মধ্যে সাত পদে ষোল জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আমরা এই সাত পদের জন্য আলাদা আলাদা করে সাতটি ব্যালট পেপারে প্রত্যেকের নাম পদবী ছবিসহ ভোট দানের জন্য আধুনিক ব্যালট পেপারের ব্যবস্থা করে রেখেছি,এখন পর্যন্ত কি কোনো প্রার্থী নির্বাচনী বিধিমালা লঙ্গন করেছেন ? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন,আমাদের দেওয়া নির্বাচনী যে বিধিমালা রয়েছে তা এখন পর্যন্ত কোন প্রার্থী লঙ্গন করেননি।

তবে কোনো প্রার্থী বিরুদ্ধেও কারো কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। নির্বাচন নিয়ে কি আপনারা কোনো শঙ্কা বোধ করছেন ? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, অব্যশই না। কারণ যারাই নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন তারা সকলেই অত্যন্ত ভদ্র এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় বিশ্বাসী। সুতরাং এখানো কোনো কুচক্রী মহল নির্বাচন নিয়ে কোনো ধরনের নাশকতা সৃষ্টি করতে পারবে না। তারপরেও আমরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং থানা প্রশাসনের সাথে আলোচনা করেছি। নির্বাচনের দিন আমরা সরকারী দপ্তরের একজন প্রিজাইডিং অফিসার রাখবো এবং নির্বাচন কমিটির মাধ্যমে দুজন পোলিং অফিসার রাখবো। আমরা আশাবাদী সকলের সহযোগিতায় উৎসব মূখর পরিবেশে শতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী দয়ামীর বাজারের বণিক কল্যাণ সমিতির অবাদ,সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ একটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।