Fri. Mar 5th, 2021

তাহিরপুরে পাথর উত্তলনের ছবি তুলায় সাংবাদিককে মারপিটঃ অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতারের নির্দেশঃ পুলিশ সুপার

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্ত নদী যাদুকাটার তীর কেটে বালু উত্তোলনের ছবি তুলতে গিয়ে হামলার স্বীকার হয়েছেন তাহিরপুর প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক সংবাদ এর তাহিরপুর উপজেলা প্রতিনিধি কামাল হোসেন। সাংবাদিক কামাল হোসেন উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্ধ গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় যাদুকাটা নদীর তীর কেটে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করছে একটি বালুখেকো চক্র। খবর পেয়ে সাংবাদিক কামাল হোসেন ছবি তুলতে গেলে ঘাগটিয়া গ্রামের রইস মিয়া,দ্বীন ইসলাম ও মাহমুদুলের নেতৃত্বে বালু খেকো চক্রটি তার উপর অতর্কিত হামলা করে মারাত্মক আহত করে নদীর পাড় থেকে টেনে হিছড়ে ঘাগটিয়া বাজারে এনে গাছের সঙ্গে রশ্মি দিয়ে বেধে রেখে নির্যাতন করতে থাকে। একপর্যায়ে সংবাদ পেয়ে বাদাঘাট পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ এসআই মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

সাংবাদিক কামাল হোসেন জানান,নদীতে তীর কেটে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের ছবি তুলতে গেলে বালু খেকো ঘাগটিয়া গ্রামের রইস মিয়া,দ্বিন ইসলাম, মাহমুদুল চক্ররা তার উপর হামলা করে তাকে মারাত্মক আহত করে এবং তার মোবাইল,ক্যামেরা ও মোটরসাইকেল তারা ছিনিয়ে নেয়।

তাহিরপুর সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তার অবস্থা আশংকাজনক।পরে কামাল হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। কামাল হোসেন উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে গেলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়াতুন নবী সায়েম তাকে দেখতে যান, এসময় তাকে দেখতে গিয়ে তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল,সুনামগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু,সিনিয়র সহ সভাপতি মাসুম হেলাল সাধারণ সম্পাদক এমরানুল হক চৌধুরী,যমুনা টিভির প্রতিনিধি মাহমুদুর রহমান তারেকসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ তীব্র প্রতিবাদ ও দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার দাবী জানান। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়াতুন নবী সায়েম জানান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বিপিএম ইতিমধ্যেই অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে নির্দেশ দিয়েছেন । অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার করতে ও তার খোয়া যাওয়া মোটরসাইকেল ও মোবাইল ফোনটি উদ্ধারের চেষ্টা করছি ।