Main Menu

পুলিশের আশ্বাসে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক থেকে অবরোধ প্রত্যাহার

ডেইলি বিডি নিউজ:: সিলেট জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মহিলার মৃত্যু নিয়ে রোগীর স্বজন ও নিরাপত্তা কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের পর সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক অবরোধ করেন সিলেট জেলা ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান-পিকআপ শ্রমিকরা।

তবে পুলিশের আশ্বাসের ভিত্তিতে প্রায় ১ ঘণ্টা পর সড়ক অবরোধ তুলে নেন তারা।

নিহত মহিলার ছেলে পরিবহন সংগঠনের একজন সদস্য হওয়ায় এবং তাকে হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীরা মারপিট করায় শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করেন। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের সুবিধবাজারে বৈরাতি কমিউনিটি সেন্টারের সামনে অবরোধ করেন তারা। এতে কয়েক মিনিটের মধ্যে দুপাশে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

দুটি ট্রাক রাস্তায় এলোপাতাড়ি রেখে শ্রমিকরা অবরোধ করে মিছিল দেন। এসময় শ্রমিকরা ওই মহিলার স্বজনদের মারপিটের প্রতিবাদ জানান এবং ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর বিচার চান।

খবর পেয়ে বিকাল ৫টার দিকে সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) উপকমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের বিচারের আশ্বাস প্রদান করলে তারা সড়ক অবরোধ তুলে নেন।

এসময় আজবাহার আলী শেখ বলেন,শ্রমিকরা মামলা দিতে চাইলে মামলা গ্রহণ করা হবে এবং ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত শেষে দোষীদের শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে।

এর আগে জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গোলাপগঞ্জ উপজেলার ইসলামাবাদ এলাকার বাসিন্দা আলাউদ্দিনের স্ত্রী ফুলজান বেগমের (৭৩) মৃত্যুর ঘটনায় রোগীর স্বজন ও নিরাপত্তা কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বেলা ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সিলেট জালালাবাদ থানাপুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। এ রিপোর্ট লেখা (বিকাল পৌনে ৫টা) পর্যন্ত রাগীব-রাবেয়া মেডিকেলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে পরিস্থিতি এখনও শান্ত হয়নি এবং থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

ফুলজান বেগমের স্বজনদের অভিযোগ,৩ দিন আগেই ভুল চিকিৎসায় মারা গেছেন তিনি এবং মৃত্যুর পরও আদায়ের লক্ষ্যে লাশ আইসিইউতে রেখে দেন মেডিকেল কর্তৃপক্ষ।

তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত রাগীব-রাবেয়া মেডিকেলের দায়িত্বশীল কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।






Related News

Comments are Closed