Main Menu

এই শীতে ঘুরে আসতে পারেন জাফলং

এম আরিয়ানঃ শীতে বেড়ানোর জন্য এই মুহুর্তে সবচেয়ে উপযোগী হিসেবে যে কেউ বেছে নিতে পারেন প্রকৃতির রূপসী কন্যা জাফলংকে স্বচ্ছ জলরশি,সুদৃশ্য পাহাড় চুড়া,আর নানান রঙের নুড়ি পাথরের এক অপূর্ব সমন্বয় সিলেটের জাফলং। নগর সভ্যতার যান্ত্রিক কোলাহল ছেড়ে জীবন এখানে এসে মাথা লুকোয় একটু শান্তির খোঁজে। প্রকৃতির মায়াবী পরশে আনন্দে নেচে ওঠে মন। শীতের ভ্রমণকে পরিপূর্ণ করে তুলতে যে কেউ আসতে পারেন পাহাড়,পানি ও পাথরভরা রূপকথার রাজ্য জাফলংয়ে।

যা যা দেখবেনঃ প্রকৃতি কন্যা হিসেবে সারা দেশে এক নামে পরিচিত সিলেটের জাফলং । খাসিয়া জৈন্তা পাহাড়র পাদদেশে অবস্থিত জাফলং প্রাকৃতিক সোন্দর্যের অপরূপ লীলাভূমি । পিয়াইন নদীর তীরে স্তরে স্তরে বিছানো পাথরের স্তুপ জাফলংকে করেছে অত্যন্ত আকর্ষণীয় ।

সীমান্তের ওপারে ভারতীয় পাহাড়-টিলা, ডাউকি পাহাড় থেকে অবিরাম ধারায় প্রবাহমান জলপ্রপাত,পিয়াইন নদীর স্বচ্ছ হিমেল পানি,, ঝুলন্ত ডাউকি ব্রীজ, উচুঁ পাহাড়ের গহিন অরণ্য ও প্রকৃতির শুনশান নিরবতা পর্যটকদের দারুণভাবে মোহাবিষ্ট করে । তাই যান্ত্রিক সভ্যতার সকল ব্যস্ততা ভুলে গিয়ে কিছুটা সময়ের জন্য হলেও প্রকৃতির সান্নিধ্যে নিজেকে সপে দিতে  প্রতিদিনই দেশি-বিদেশি হাজারো পর্যটক ছুটে আসেন প্রকৃতিকন্যা জাফলংয়ে  ।

প্রকৃতি কন্যা ছাড়াও বিউটি স্পট, পিকনিক স্পট, সৌন্দর্যের রাণী সহ বাহারী নামে পর্যটকদের কাছে পরিচিত জাফলং । ভ্রমন পিয়াসীদের কাছে জাফলংয়ের আকর্ষণ যেন সম্পূর্ণ আলাদা । তাই সিলেট ভ্রমনে আসলে জাফলং না গেলে ভ্রমনই যেন অপূর্ণ থেকে যায় ।

যেভাবে যাবেনঃ সিলেট নগরী থেকে ৬২ কিলোমিটার উত্তর পূর্ব দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলায় জাফলং এর অবস্থান। জাফলংয়ে শীত ও বর্ষা মৌসুমের সৌন্দর্যের রুপ ভিন্ন। বর্ষায় জাফলং এর রুপ লাবণ্য যেন ভিন্ন মাত্রায় ফুটে উঠে। ধূলি ধূসরিত পরিবেশ হয়ে ওঠে স্বচ্ছ। স্নিগ্ধ পরিবেশে শ্বাস-নি:শ্বাসে থাকে ফুরফুরে ভাব। খাসিয়া পাহাড়ের সবুজাভ চূড়ায় তুলার মত মেঘরাজির বিচরণ এবং যখন-তখন অঝোরধারায় বৃষ্টি পাহাড়ি পথ হয়ে উঠে বিপদ সংকুল-সে যেন এক ভিন্ন শিহরণ। সেই সঙ্গে কয়েক হাজার ফুট উপর থেকে নেমে আসা সফেদ ঝর্ণাধারার দৃশ্য যে কারোরই নয়ন জুড়ায়।

ভ্রমণে সতর্কতাঃ তবে জাফলং বেড়াতে আসা পর্যটকদের সতর্ক থাকতে হবে যে, কোনভাবেই সাতার না জানলে পানিতে নেমে গোসল করা যাবে না । প্রতি বছরই দেখা যায় পিয়াইন নদীতে গোসল করতে গিয়ে সাতার না জানা পর্যটকরা বিভিন্ন দূর্ঘটনায় পড়েছেন । তাই এ বিষয়ে সকল পর্যটকদের সতর্ক থাকতে হবে ।






Comments are Closed