Main Menu

মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানিতে ৮০ হাজার লোকের মেজবান

ডেইলি বিডি নিউজঃ প্রয়াত চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রাক্তন সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানি উপলক্ষে ৮০ হাজার মানুষের জন্য মেজবানির আয়োজন করা হয়েছে।

আগামীকাল সোমবার দুপুর থেকে চট্টগ্রাম নগরীর ১২টি কমিউনিটি হলে এক যোগে এই মেজবানি অনুষ্ঠিত হবে। মেজবানির প্রস্তুতি শুরু হয়েছে গতকাল শনিবার থেকে।

মেজবানিতে শুধুমাত্র নারীদের জন্য মহিউদ্দিন চৌধুরীর চশমা হিলের নিজ বাড়ি এবং মুসলমান ছাড়া ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের জন্য পৃথক একটি কমিউনিটি সেন্টার বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌধুরী ব্যক্তিগত সহকারী মো. ওসমান গণি ৮০ হাজার মানুষের জন্য মেজবানি আয়োজনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর পারিবারিক সূত্র জানায়, এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী যতদিন বেঁচে ছিলেন তার বাড়িতে গিয়ে কেউ কখনো না খেয়ে ফিরে আসতে পারেনি। মহিউদ্দিন চৌধুরীর চশমা হিলের বাড়িতে সব সময় রীতিমত মেজবানির আয়োজন লেগে থাকতো। তাই এমন একজন নেতার মৃত্যুতে সমগ্র চট্টগ্রামবাসী যাতে খেতে পারে তাই ৮০ হাজার লোকের জন্য মেজবানির আয়োজন করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম নগর জুড়ে যে ১২টি কমিউনিটি হলে এই মেজবানি আয়োজন করা হয়েছে এগুলো হলো- নগরীর পাঁচলাইশ থানার বিপরীতে দি কিং অব চিটাগাং, জিইসি মোড়ের কে স্কয়ার কমিউনিটি সেন্টার, চকবারাজারের কিশলয় কমিউনিটি সেন্টার, পাঁচলাইশ আবাসিক এলাকায় অবস্থিত সুইসপার্ক কমিউনিটি সেন্টার, লাভলেইন সড়কের স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টার, মোহাম্মদপুরের এন মোহাম্মদ কনভেনশন হল, বাকলিয়া থানা এলাকার কেবি কনভেনশন হল, কাজীর দেউরি এলাকার ভিআইপি ব্যাংকুইট কমিউনিটি সেন্টার, সাগরিকা স্কয়ার ও ডবলমুরিং থানা এলাকার গোল্ডেন টাচ কমিউনিটি সেন্টার। হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ও অন্যান্য ধর্মের অনুসারীদের মেজবানের আয়োজন করা হয়েছে নগরীর জামাল খান এলাকার রীমা কনভেনশন সেন্টারে।

এ ছাড়া নারীদের জন্য মেজবানির আয়োজন থাকবে নগরীর দুই নম্বর গেট মেয়র গলির এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর বাড়ি চশমা হিলে।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের অত্যন্ত জনপ্রিয় আওয়ামী লীগ নেতা ও একাধারে তিন বার নির্বাচিত চট্টগ্রাম সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী গত শুক্রবার ভোরে নগরীর মেহেদিবাগের ম্যাক্স হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। শুক্রবার বিকেলে লালদিঘী ময়দানে লাখো মানুষের উপস্থিতিতে তার জানাজা শেষে সন্ধ্যায় চশমা হিলের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন তিন দিনের শোক কর্মসূচি পালন করছে।






Related News

Comments are Closed