Main Menu

সিলেট থেকেই নির্বাচনের প্রচার শুরু করবেন শেখ হাসিনা

ডেইলি বিডি নিউজঃ জাতীয় সংসদ নির্বাচন চলতি বছরের শেষার্ধে। সিটি নির্বাচন সামনে। ২০১৮ সাল হচ্ছে নির্বাচনের বছর। ‘গুরুত্বপূর্ণ’ এই বছরে সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট সফরের মাধ্যমেই এই নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন। সুতরাং নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে আগে-ভাগেই সিলেটের নেতা-কর্মীদের জানিয়ে দেয়া হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আবুল মাল আবদুল মুহিত সিলেটে দলের বর্ধিত সভায় দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে এ রকম ম্যাসেজ দিয়েছেন। তিনি এও বলেছেন- আওয়ামী লীগ নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই নির্বাচন করবে। এ কারণে দলীয় সভানেত্রী সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করতে যাচ্ছেন। এই নির্বাচনের প্রস্তুতিতে তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের আরও বেশি বিনয়ী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। সামনে নির্বাচন হওয়ায় অর্থমন্ত্রী নিজেও আগের চেয়ে অনেক বেশি এলাকামুখী হচ্ছেন। শেখ হাসিনার সিলেটের সমাবেশের ম্যাসেজ ক্লিয়ার করেছেন। বলেছেন, বাংলাদেশ ধারণার চেয়ে আরো বেশি এগিয়ে গেছে। টার্গেট মতো বাংলাদেশ ২০৩২-৩৩ সালের মধ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ হওয়ার কথা। কিন্তু ২০২৪ সাল পর্যন্ত সময় পেলে আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ উপহার দিতে পারবো।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেটের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী  হাসিনার সিলেটের এই সফর হচ্ছে নির্বাচনী সফর। দলীয় সভায় প্রধানমন্ত্রী নিজেই বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে সফরের কথা জানিয়েছেন। ডিসেম্বর মাসে তিনি এ কথা জানানোর পরপরই দ্রুততম সময়ের মধ্যে সিলেটে আসার ঘোষণা দেন। আগামী ৩০শে জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী সিলেটে সফর করবেন। সেই আঙ্গিকে এখন প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি। আগামী সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ধীরে ধীরে সরগরম হয়ে উঠছে ভোটের মাঠ। ইতিমধ্যে সিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন। আওয়ামী লীগ সূত্র জানিয়েছে, প্রায় ৩ মাস আগে ঢাকায় আওয়ামী লীগের সভায় দলীয় সভানেত্রী সিলেটের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরানকে সিটি নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার তাগিদ দিয়েছেন। ওই সময় তিনি সাংগঠনিক সম্পাদকরাসহ সকলকে সিলেটের মাঠে কাজ করার নির্দেশ দেন। তার এই নির্দেশের পর থেকে সিলেটে ভোট প্রস্তুতি শুরু করেছেন বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি এখন প্রতিদিনই পাড়া-মহল্লায় ছুটে যাচ্ছেন। সিলেটে চলছে স্মার্টকার্ড বিতরন। প্রায় প্রতিদিনই স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা কেন্দ্রে ছুটে যাচ্ছেন কামরান। গত শনি ও রোববার সিলেটের নয়াসড়কের কিশোরী মোহন কেন্দ্রে স্মার্টকার্ড বিতরণ পরিদর্শনে যাচ্ছেন।

কামরান ছাড়াও সিলেট সিটি করপোরেশনে আরো কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা ভোটের মাঠে রয়েছেন। এর মধ্যে আছেন মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আসাদউদ্দিন আহমদ ও সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহিউদ্দিন আহমদ সেলিম। আপাতত সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে সিলেটের ভোটের মাঠ সরগরম। তবে সংসদ নির্বাচনের প্রার্থীরাও থেমে নেই। তারাও একইভাবে প্রচারণায় নেমেছেন। সিলেট আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অতীতে সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রস্তুতি কিংবা প্রচারণা শুরু করেছেন। এবারও তার ব্যত্যয় ঘটেনি। এজন্য সিলেটের সমাবেশকে সবচেয়ে বেশি ‘গুরুত্ব’ দেয়া হচ্ছে। এ সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগামী নির্বাচন সম্পর্কিত বক্তব্য রাখবেন। ফলে সিলেটের এ সমাবেশ দলীয় কর্মীদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। পাশাপাশি এ সমাবেশকে ঘিরে সাধারণ মানুষের মধ্যেও আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এর ফলে সমাবেশে দলীয় নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের বিপুল উপস্থিতি থাকবে।

প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশকে সিলেটে সফল করতে সিলেটে বিশেষ বর্ধিত সভা করেছে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। সিলেট জেলা ও মহানগর যুবলীগ নগরীর রেজিস্ট্রারি মাঠে বিভাগীয় প্রতিনিধি সভার আয়োজন করেছে। এই সমাবেশে উপস্থিত থাকার জন্য অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে আনুষ্ঠানিক দাওয়াত দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান মুক্তি। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিলেটের সমাবেশকে সফল করতে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। জনসভা সফল করার লক্ষ্যে সিলেট মহানগর ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যৌথ প্রস্তুতি সভা সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে গতকাল রাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি অ্যাডভোকেট আলহাজ মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার।






Related News

Comments are Closed