Main Menu

ডেঙ্গু

ডেঙ্গু
ফরহাদ মোঃ রুবেন

ডেঙ্গু নিয়ে তামাশা।আর না,আর না।
ডেঙ্গু জ্বর হইলে পরে
বুঝবে তখন
নেতা নেত্রী মানে না,মানে না।
কে চেয়ারম্যান, কে মেয়র,কে আওয়ামী লীগ,
কে বি এন পি
বুঝে না,বুঝে না।
সকাল সন্ধায় যারে পায়
ছাড়ে না,ছাড়ে না।

কে ডাক্তার কে ইঞ্জিনিয়ার
দেখে না,দেখে না।
কে নায়ক,কে নায়িকা
বুঝে না,বুঝে না।
কে শিক্ষাবিদ,কে মেয়র
কে প্রফেসর, কে অজগর
কে সচিব,কে মন্ত্রী
কেয়ার করে না,কেয়ার করে না।
কে শিশু, কে অবুঝ
মাফ করে না,মাফ করে না।
বলতে পারো কারো প্রতি দয়া দেখায় না।

মশা খুঁজছো দিন দুপুরে, রাজপথে
সি এন জি আর বাসের কাছে
বলছো মুখে সচেতনতা।
মানুষ হাসছে
লোকে বলছে পাগল ছাড়া কিছু না।

দেখবা নিজের ঘর বাড়ি,আশপাশ,প্রতিবেশী
স্বচ্ছ জল আর জমানো পানি।
করবা বৈঠক দিবা তথ্য
নিজ এলাকা আর গঞ্জে।
শুনবে মানুষ হবে সাবধান
হবে হেফাজত এই মুছিবত থেকে।

যখন ডেঙ্গু করবে কাহিল
পাবে না ঔষধ, পাবে না সেবা।
তখন থাকবে না আর মনোবল।
সেই মুহূর্তে পাঞ্জাবি আর ফটোগুলি
আসবে তেড়ে পড়ন্ত অনুচক্রিকা হয়ে।
লাগবে খেলা রাষ্ট্র, জনগন, আর জনপ্রতিনিধির মধ্যে।
আমরা নীরিহ জন,ভেবে পাইনা
করবো কি তখন?

সবাই তখন সুর তুলবে
পাপে ধরেছে,পাপে ধরেছে।
নমরুদের মশা বুঝি
সরকারকে ভর করছে।
হবে চাঙ্গা অপ রাজনীতি
সঙ্গী হবে সন্দেহ আর ভয় ভীতি।

তুমি মেম্বার, তুমি চেয়ারম্যান
তুমি পাবলীক প্রতিনিধি।
ডেঙ্গুর ঠেলায় যাবে তখন
তোমার দাদাগীরি।
তখন পচবে সরকার শেখ হাসিনা
চারদিকে উঠবে রব
কিছু করে না,কিছু করে না।

বাড়ির ছেলে বাড়ি ফিরে যাও
নিজ চক্রায় দেওয় তেল।
নইলে দেখবে পরে, মশার চাপে
আম ছালা সবই গেছে।
করবা কান্না চৌমুহনী আর বট তলে।

নিবেদক
ফরহাদ মোঃ রুবেন
সহ সভাপতি
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, সিলেট জেলা।






Related News

Comments are Closed