Main Menu

সিলেটের দুই ল্যাবে আরও ১৬৫ জনের করোনা শনাক্ত

ডেইলি বিডি নিউজঃ সিলেট ও ঢাকার ল্যাবে নমুনা পরীক্ষার পর সিলেট অঞ্চলে একদিনে করোনা আক্রান্ত হলেন মোট ১৬৫ জন। এর মধ্যে সিলেটের পৃথক দুটি ল্যাব থেকে করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে ১০৮ জনের এবং ঢাকা থেকে রিপোর্ট আসে আরো ৫৭ জনের। এর মধ্যে সুনামগঞ্জ ৯২, সিলেট ৪৭, মৌলভীবাজার ১৩ ও হবিগঞ্জ জেলায় আরো ১৩ জন রয়েছেন।

দুটি ল্যাবের রিপোর্ট হিসেবে সুনামগঞ্জে একদিনে করোনা আক্রান্ত হলেন ৯২ জন। এর মধ্যে শাবির পিসিআর ল্যাব থেকে ৬১ জন এবং ঢাকা থেকে আরো ৩১ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন এবং শাবির ল্যাব সুত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শাবিতে ১৩ জুন শনিবার ২০২ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি (জিইবি) বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হাম্মাদুল হক সিলেট প্রতিদিনকে জানান, পরীক্ষা শেষে ৬১ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আক্রান্ত ৬১ জনই সুনামগঞ্জ জেলার বাসিন্দা। এর আগে ১২ জুন শাবির পিসিআর ল্যাবে সুনামগঞ্জের আরো ১৪ জন করোনা শনাক্ত হয়।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের ২য় তলায় স্থাপিত পিসিআর ল্যাব থেকে নমুনা পরীক্ষার পর শনিবার সিলেট জেলায় আরো ৪৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ওসমানী হাসপাতালের উপ-পরিচালক হিমাংশু লাল রায় শনিবার (১৩ জুন) রাতে জানান শনিবার মোট ১৮১ জনের করোনা টেষ্ট করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪৭ জনের করোনা রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। অর্থাৎ ৪৭ জনই করোনা আক্রান্ত। আক্রান্ত ৪৭ জনই সিলেট জেলার বাসিন্দা। এর আগে ১২ জুন ওসমানীর পিসিআর ল্যাব থেকে ১৮১টি নমুনা পরীক্ষার পর সিলেটের ৪০ জনের রিপোর্ট করোনা পজেটিভ আসে।

এদিকে ঢাকা থেকে প্রাপ্ত রিপোর্ট শেষে সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামসুদ্দিন জানান, শনিবার সুনামগঞ্জে নতুন করে আরও ৩১ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। ঢাকায় পাঠানো নমুনা পরীক্ষা শেষে ৩১ জনের ফলাফল পজেটিভ আসে।
মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন ডা. তওহীদ আহমদ জানান, শনিবার ঢাকা থেকে প্রাপ্ত রিপোর্টে জেলায় নতুন করে আরও ১৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে পুলিশ ও স্বাস্থ্যকর্মী আছেন।

হবিগঞ্জের ডেপুটি সিভিল সার্জন মখলিছুর রহমান উজ্জ্বল জানান, হবিগঞ্জে শনিবার (১৩ জুন) আরও ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনি জানান, আজ জেলায় আরও ১৩ করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের রিপোর্ট ঢাকা থেকে পাঠানো হয়েছে। জানা গেছে আক্রান্তদের মধ্যে চিকিৎসক, নার্স ও পুলিশ সদস্য আছেন।






Related News

Comments are Closed